লক্ষ্মী পূজা আজ

রুমন ভট্টাচার্য

সৌভাগ্য ও ধন সম্পদের অধিষ্ঠাত্রী দেবী শ্রী শ্রী কোজাগরী লক্ষ্মী পূজা আজ। শারদীয় দুর্গোৎসব শেষ হওয়ার পরবর্তী পূর্ণিমা তিথিতে লক্ষ্মী পূজা উদযাপিত হয়। কিছুদিন আগে দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গার আগমনে আনন্দময় হয়ে উঠেছিল ধরণী। চিন্ময়ীর বিদায়ের বার্তা ভুলে আজ আবারও আনন্দে মেতে উঠবেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বিভিন্ন মঠ, মন্দির ছাড়াও হিন্দু পরিবারের প্রতিটি ঘরে আজ লক্ষ্মী পূজা উদযাপিত হবে।
আজ পূজা গ্রহণের জন্য ভক্তের ডাকে সাড়া দিয়ে লক্ষ্মী দেবী মর্ত্যে নেমে আসবেন। সঙ্গে থাকবে বাহন পেঁচা এবং হাতে থাকবে শস্যের ভাণ্ডার।
বাংলাদেশে চান্দ্র আশ্বিন মাসের পূর্ণিমা তিথিতে অর্থাৎ কোজাগরী পূর্ণিমায় দেবী লক্ষ্মীর আরাধনা করা হয়। এছাড়া প্রতি বৃহস্পতিবার সধবা স্ত্রীগণ তাদের ঘরে লক্ষ্মী পূজা করে থাকেন।
পঞ্জিকা মতে, চতুর্দশী তিথি ছিল গতকাল মঙ্গলবার রাত ১০টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত। এরপরই শুরু হয়েছে পূর্ণিমা তিথির। আজ বুধবার রাত ১০টা ৪১ মিনিট পর্যন্ত পূর্ণিমা তিথি রয়েছে। এই সময়ের মধ্যে পূজার সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষ করতে হবে।
হিন্দু ধর্মাবল্বীদের বিশ্বাস, লক্ষ্মী দেবী সন’ষ্ট থাকলে সংসারে অর্থকষ্ট থাকে না ও সুখ-স্বাচ্ছন্দ্য বাড়ে। ঘরে ঘরে মা লক্ষ্মী ধন-সম্পদের দেবী হিসেবে পূজিত হন।
দেবী লক্ষ্মী দ্বিভূজা। লক্ষ্মী ছয়টি বিশেষ গুণের দেবী। তিনি বিষ্ণুর পত্নী। তাঁর অপর নাম মহালক্ষ্মী। দেবী লক্ষ্মী শুধু ধনই দেন না। ষোল প্রকার সম্পদ প্রদান করেন তিনি- খ্যাতি, জ্ঞান, সাহস, শক্তি, জয়, সুসন্তান, বীরত্ব, স্বর্ণ, অন্যান্য রত্নরাজি, শস্য, সুখ, বুদ্ধি, সৌন্দর্য, উচ্চাশা, উচ্চভাবনা, নৈতিকতা, সুস্বাস’্য ও দীর্ঘজীবন।
লক্ষ্মীপূজা কোজাগরী লক্ষী পূজা নামেও পরিচিত। কোজাগরী শব্দটি এসেছে ‘কো জাগর্তি’ থেকে, যার অর্থ ‘ ‘কে জেগে আছো?’
সনাতনী বিশ্বাস মতে, আজ রাতে দেবী লক্ষ্মী ধন-সম্পদ দিতে যে কোনো সময় ঘরের দ্বারে এসে ‘কো জাগর্তি’ বলে ডাক দেবেন। জেগে থাকা মানুষেরাই এ ধন লাভের অধিকারী হয় বলে ব্রতকারীরা এজন্য আজ সারারাত জেগে থাকবেন দেবীর ডাকের প্রতীক্ষায়।
আজ দেবী লক্ষ্মী আসবেন নৌকায় ধন সম্পদে পূর্ণবর্তী হয়ে অন্নপূর্ণার আলতা রাঙা পায়ের চিহ্ন আঁকা হবে ঘরে ঘরে। ধন-সম্পদের আশায় হিন্দু নারী-পুরুষেরা উপবাস ব্রত পালন করবেন। আরাধনা করবেন দেবী লক্ষ্মীর। পূজা শেষে দেবেন পুষ্পাঞ্জলি। প্রার্থনা করবেন-‘এসো মা লক্ষ্মী বস ঘরে/আমারই ঘরে থাক আলো করে।’