উখিয়ায় সমাবেশে বক্তারা

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বহির্বিশ্বকে পাশে থাকার আহ্বান

নিজস্ব প্রতিনিধি, উখিয়া

মিয়ানমারের নেপিডোতে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ-মিয়ানমারের মধ্যকার বৈঠকে দীর্ঘদিনের জটিলতা কাটিয়ে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন চুক্তি সম্পাদিত হওয়ায় উখিয়া-টেকনাফের ৫ লক্ষাধিক মানুষের মাঝে দেখ দিয়েছে আনন্দ উদ্দীপনা। গত বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টার দিকে স্থানীয় হোটেলের একটি হল রুমে অনুষ্ঠিত উখিয়া বাঁচাও আন্দোলনের ব্যানারে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সংগ্রাম কমিটির নেতৃবৃন্দরা এমন মন্তব্য করে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বহির্বিশ্বকে বাংলাদেশের পাশে থাকার আহবান জানানো হয়। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ও উখিয়া বঙ্গমাতা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী প্রত্যাবাসন সম্পর্কিত আলোচনায় বলেন, আগামী ২৩ জানুয়ারি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের কথা থাকলেও কারা, কোন পথে এবং কিভাবে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন করবে তা এখনো স্পষ্ট হয়নি। যা নিয়ে রোহিঙ্গাদের মধ্যে দেখা দিয়েছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা।
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত কতিপয় এনজিওদের সতর্ক করে তিনি আরো বলেন, রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি যে সমস্ত স্থানীয় জনসাধারণ রোহিঙ্গাদের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের প্রতি দৃষ্টি রাখতে হবে। যেমন ত্রাণ সামগ্রী, স্থানীয় ও রোহিঙ্গাদের মাঝে সম বন্টনসহ রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকায় আইনশৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য এনজিওদের যা যা দরকার তাই করতে হবে। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সংগ্রাম কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও পালংখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী বৈঠকে বলেন, শুধুমাত্র তার ইউনিয়ন পালংখালীতে প্রায় ৫ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা এখন ক্যাম্পে বসবাস করছে। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন চুক্তি সম্পাদিত হওয়ায় তিনি আবারো প্রধানমন্ত্রীকে সাধুবাদ জানিয়ে আর্ন্তজাতিক বিশ্বকে প্রত্যাবাসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে থাকার আহবান জানান।
এসময় উপস্থিত ছিলেন রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সংগ্রাম কমিটির উপদেষ্টা যথাক্রমে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাহামুদুল হক চৌধুরী, অধ্যাপক আদিল উদ্দিন চৌধুরী, আবুল মনছুর চৌধুরী, কমিটির সহ-সভাপতি রাজাপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, হলদিয়া পালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ আলম, জালিয়াপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন চৌধুরী, রত্নাপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খাইরুল আলম চৌধুরী।
বৈঠকে নেতৃবৃন্দ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনসহ উখিয়া-টেকনাফের সার্বিক বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার সাথে স্বাক্ষাৎ ও আগামী ২৩ জানুয়ারি উখিয়ায় একটি বিশাল জন সমাবেশের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।