রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বায়োমেট্রিক পদ্ধতির নিবন্ধনকেন্দ্র ফাঁকা

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার

ভারি বৃষ্টি ও আবহাওয়া প্রতিকূলে থাকায় উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থিত বায়োমেট্রিক পদ্ধতির নিবন্ধনকেন্দ্র ফাঁকা রয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে এই অবস্থা দেখা গেছে। তবে কিছু কিছু রোহিঙ্গা নিবন্ধিত হচ্ছে। কেন্দ্রের কর্তব্যরত কর্মকর্তারা বলছেন, বিকালে দিকে হয়তো রোহিঙ্গাদের ভিড় বাড়তে পারে।
কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প বায়োমেট্রিক নিবন্ধনকেন্দ্রের সমন্বয়ক মেজর রেজা বলেন, আজ সকালে ভারি বৃষ্টি ছিল। এ কারণে রোহিঙ্গাদের উপস্থিতির সংখ্যা কমে গেছে। সকাল পর্যন্ত এই নিবন্ধনকেন্দ্রে ৬ হাজারেরও অধিক রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ নিবন্ধিত হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে, বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধনের জন্য রোহিঙ্গাদের ভিড় বাড়বে।
নিবন্ধনকেন্দ্রের বাইরে অপেক্ষমাণ রোহিঙ্গা শফিউল্লাহ, সাজেদা খাতুন ও রহিমা বিবি বলেন, বৃষ্টির কারণে অনেকে নিবন্ধিত হওয়ার জন্য কেন্দ্রে আসেনি। এছাড়াও বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধিত হলে সরকার এসব রোহিঙ্গাদের খুব দ্রুত মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর একটি গুজব ছড়িয়ে দিয়েছে একটি মহল। এ কারণে রোহিঙ্গাদের উপস্থিতি কমে গেছে’।
উল্লেখ্য, গত ১১ সেপ্টেম্বর রোহিঙ্গাদের সঠিক সংখ্যা নির্ণয় ও পরিচয় নিশ্চিত করতে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন শুরু করে সরকার। এতে ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের সহায়তায় কারিগরি সহায়তা দিচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান টাইগার আইটি। মঙ্গলবার পর্যন্ত ৬ হাজারের অধিক শরণার্থী তালিকাভুক্ত করা সম্ভব হয়েছে। কুতুপালংয়ে একটি কেন্দ্রে ৬টি ও টেকনাফের নয়াপাড়ায় একটি কেন্দ্রে ৪টি বুথ খোলা হয়েছে। এছাড়াও বালুখালীসহ অন্যান্য স্থানে আরও ১৫ থেকে ২০টি কেন্দ্র খুলে নিবন্ধন কার্যক্রম চালানোর কথা থাকলেও এখনো সেই কেন্দ্রগুলো চালু করা হয়নি।