অর্থ আত্মসাৎ মামলা

রিমান্ডে এস এ গ্রুপের এমডি শাহাবুদ্দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক

নগরীর ইপিজেড থানায় দায়ের করা অর্থ আত্মসাতের একটি মামলায় এস এ গ্রুপ ও এস এ রিফাইনারির ব্যবস’াপনা পরিচালক (এমডি) শাহাবুদ্দিন আলমকে ২ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। গতকাল মহানগর হাকিম আবু সালেহ মোহাম্মদ নোমানের আদালত শুনানি শেষে শাহাবুদ্দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে শাহাবুদ্দিনকে অর্থ আত্মসাতের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করে সিআইডি।
উল্লেখ্য, নগরীর ইপিজেড থানায় ২০১৭ সালে ব্যাংক এশিয়ার ৭০০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা একটি মামলায় শাহাবুদ্দিনকে আদালতে হাজির করে সিআইডি। এর আগে ঋণ জালিয়াতির অভিযোগে দায়ের করা ব্যাংক এশিয়ার অন্য একটি একটি মামলায় গত ১৭ অক্টোবর দুপুরে গুলশানের একটি হোটেল থেকে শাহাবুদ্দিনকে গ্রেফতার করে সিআইডি।
নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (প্রসিকিউশন) নির্মলেন্দু বিকাশ চক্রবর্তী সুপ্রভাতকে বলেন- ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে আত্মসাৎ করার অভিযোগে নগরীর ইপিজেড থানায় দায়ের করা একটি মামলায় আসামি শাহাবুদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে হাজির করে ৫ দিন রিমান্ড আবেদন করা হয়। আদালত শুনানি শেষে ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
আদালতসূত্রে জানা গেছে- এসএ গ্রুপের চেয়ারম্যান বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক ও ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে বিভিন্ন সময়ে মোট ৩ হাজার ৬২২ কোটি ৪৮ লাখ ৪৫ হাজার ৫৯ টাকার ঋণ সুবিধা গ্রহণ করেন। বিশাল অংকের এ টাকা পরিশোধ না করে আত্মসাৎ করেন শাহাবুদ্দিন। ব্যাংক খাতের সাথে সংশ্লিষ্ট এ ব্যক্তিটির নামে বিভিন্ন ব্যাংক ও প্রতিষ্ঠান এ পর্যন্ত ২৫ টি মামলা দায়ের করেন।
এদিকে বিসিবিএল আগ্রাবাদ শাখা কর্তৃক এস এ অয়েলের বিরুদ্ধে সাড়ে ২২ কোটি টাকা অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে আদালতে শাহাবুদ্দিনকে আসামি করে নতুন একটি মামলা দায়ের হয়েছে। গতকাল অর্থঋণ আদালতে মামলাটি দায়ের করেন কমার্স ব্যাংক আগ্রাবাদ শাখার কর্মকর্তা (ক্রেডিট ইনচার্জ) শাহনেওয়াজ। অর্থঋণ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক সুরাইয়া সাহা মামলাটি গ্রহণ করে আগামী ১১ নভেম্বর পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেন। মামলার এজাহারে দেখা গেছে- নতুন দায়ের করা মামলায় এস এ অয়েলের এম ডি সাহাবুদ্দিনের ুপাশাপাশি তার স্ত্রী ইয়াসমিন আলমকেও আসামি করা হয়।