রাষ্ট্রদ্রোহ : তারেকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

সুপ্রভাত ডেস্ক

তেজগাঁও থানার একটি রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ তিনজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে ঢাকার একটি আদালত।
ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লা সোমবার এ মামলার অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে পরোয়ানা জারির এই আদেশ দেন বলে রাষ্ট্রপক্ষের অন্যতম কৌঁসুলি তাপস কুমার পাল জানান। খবর বিডিনিউজ’র।
তারেক ছাড়া পরোয়ানার অপর দুই আসামি হলেন-একুশে টেলিভিশনের সাবেক প্রধান প্রতিবেদক মাহাথীর ফারুকী খান ও জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক কনক সারওয়ার। বিচারক আগামী ২০ নভেম্বর এ মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন রেখেছেন বলে জানান তাপস।
২০১৫ সালের ৫ জানুয়ারি লন্ডন থেকে তারেক রহমানের দেওয়া বক্তব্য একুশে টিভি সরাসরি সমপ্রচার করলে পরদিন তারেক রহমান ও একুশে টেলিভিশনের মালিক আবদুস সালামের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি চায় তেজগাঁও থানা পুলিশ।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পাওয়ার পর তেজগাঁও থানায় এসআই বোরহান উদ্দিন ২০১৫ সালের ৮ জানুয়ারি তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় এ মামলা করেন।
তদন্ত শেষে গতবছর ৬ সেপ্টেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দেন গোয়েন্দা পরিদর্শক এমদাদুল হক। সেখানে তারেক ও সালামের সঙ্গে যোগ করা হয় একুশে টেলিভিশনের প্রধান প্রতিবেদক মাহাথীর ফারুকী খান এবং জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক কনক সারওয়ারের নাম।
অভিযোগে বলা হয়, লন্ডন থেকে তারেক রহমানের দেওয়া বক্তব্য সরাসরি সমপ্রচারের মধ্য দিয়ে আসামিরা ‘পরস্পর যোগসাজশে মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য প্রচার করে দেশের সার্বভৌমত্বের প্রতি হুমকি প্রদর্শন, আইনের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত সরকারের প্রতি ঘৃণা তৈরি করতে চেয়েছিলেন’।
মামলার আসামিদের মধ্যে সালাম জামিনে রয়েছেন, বাকিরা পলাতক।
খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান গত নয় বছর ধরে পরিবার নিয়ে যুক্তরাজ্যে অবস্থান করছেন। মুদ্রাপাচারের একটি মামলায় হাই কোর্ট গতবছর তাকে সাত বছরের কারাদণ্ড দেয়।
শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টাসহ দুর্নীতি, রাষ্ট্রদ্রোহ ও মানহানীর অভিযোগে আরও কয়েক ডজন মামলা রয়েছে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে।