রাঙ্গুনিয়ায় দুর্বৃত্তপনা

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাঙ্গুনিয়া

সংখ্যালঘু সমপ্রদায়ের এক গৃহবধূর অশ্লীল ভিডিও ধারণের প্রতিবাদ করায় গত মঙ্গলবার বিকালে রাঙ্গুনিয়া পোমরায় দুর্বৃত্তরা গৃহবধূর স্বামীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে। গুরুতর আহত পিপলুকে (৩২) চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
স’ানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার ভোর পাঁচটায় গোসল করতে ঘরের পাশের শৌচাগারে গেলে পিপলুর স্ত্রী’র অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে বখাটে নুরুল আলম কালুু। গোপনে ভিডিও ধারণ করার দৃশ্য দেখে ফেলার পর পাড়ার লোকজন কালুকে ধরে মারধর করে মোবাইল কেড়ে নেয়। এরপর বিকেলে পোমরা মালিরহাট এলাকায় নুরুল আলম কালু, তার সহযোগী চাইনি পাড়ার আলী আকবরের পুত্র মো. ইমন, নোয়াপাড়ার তৌহিদসহ কয়েকজন সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে গৃহবধূর স্বামীর ওপর হামলা চালান। এতে লাঠির আঘাতে মাথা ফেটে রক্তাক্ত জখম হন পিপলু। এ ঘটনার পর থেকে সংখ্যালঘু সমপ্রদায়ের পরিবারটি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।
আহত পিপলুর মা জানান, চট্টগ্রামের বায়েজিদ এলাকায় আরএসআরএম রড ফ্যাক্টরিতে শিফট ইনচার্জ পদে চাকুরি করেন ছেলে। মঙ্গলবার ভোরে চাকরি উদ্দেশে ঘর থেকে বের হয় সে। স্বামীকে বিদায় করে শৌচাগারে যান ছেলের বউ। কিছুক্ষণ পর বউয়ের চিৎকার শুনে আমরা এগিয়ে গিয়ে জানতে পারি কেউ একজন শৌচাগারের ভেন্টিলেটরের ফাঁক দিয়ে গোপনে ভিডিও করছিলেন। এরপর ঘটনা পিপলুকে ফোন করে জানানো হলে সে আধাপথ থেকে বাড়ি ফিরে আসেন। পাড়ার লোকজন গোপনে ভিডিও ধারণকারীকে খুঁজতে থাকেন। সকাল সাতটায় পাশের পুকুর পাড়ে বসে এসব অশ্লীল ভিডিও দেখছিলেন বখাটে নুরুল আলম কালু। এসময় পেছন থেকে এসব দৃশ্য দেখে তাকে ঝাপটে ধরেন পিপলু। পাড়ার লোকজন কালুকে ধরে উত্তম মধ্যম দিয়ে মোবাইল ফোন ও মেমোরিকার্ড কেড়ে নেন। এরপর কর্মস’লে চলে যান পিপলু। বিকেল সাড়ে তিনটায় ফেরার পথে পোমরা মালিরহাট এলাকায় কালু তার ৫/৬জন সহযোগী নিয়ে পিপলুকে লাঠিসোটা দিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর করেন।