বৃষ্টির কারণে আবারও ভয়

রাঙামাটির আশ্রয়কেন্দ্রে বাড়ছে মানুষের ভিড়

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙামাটি

গতকাল রোববার ভোর থেকে আবারো থেমে থেমে প্রবল বৃষ্টি রাঙামাটিতে। ভোরের দিকে বৃষ্টির মাত্রা একটু কম থাকলেও দিন বাড়ার সাথে সাথে মাত্রা আরো বাড়তে থাকে। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসকারী সাধারণ মানুষ। বৃষ্টি বাড়তে থাকায় পাহাড় ধসের আশঙ্কায় সাধারণ মানুষও ভিড় করতে থাকে আশ্রয়কেন্দ্রে। যারা এখনো আশ্রয় কেন্দ্রে আসেনি, এমন ঝুঁকিপূর্ণ অবস’ানে থাকা মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে আসার জন্য মাইকিং করা হচ্ছে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে।
এদিকে বৃষ্টি বাড়তে থাকায় কাপ্তাই হ্রদেও পানি বাড়তে থাকে। কাপ্তাই বাঁধের ১৬টি জলকপাট দেড় ফুট খুলে দিয়ে দেয়া হয়েছে। এতে প্রতি সেকেন্ডে ২৭ হাজার কিউসেক পানি ছেড়ে দেয়া হচ্ছে বলে জানান কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস’াপক প্রকৌশলী আব্দুর রহমান। তিনি জানান, হ্রদে আজকের দিনে ৮০ এমএসএল (মিনস সী লেভেল) পানি থাকার কথা থাকলেও প্রায় ২৪ ফুট বেড়ে রোববার সকাল পর্যন্ত পানি রয়েছে ১০৪ এমএসএল। কাপ্তাই হ্রদে পানি ধারণ ক্ষমতা ১০৯ এমএসএল।
এদিকে রাঙামাটিতে পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন ও ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণের উদ্দেশ্যে রাঙামাটি আসার পথে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার শান্তির হাটে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়ি বহরে হামলার প্রতিবাদে রাঙামাটিতে সাংবাদিক সম্মেলন এবং বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে জেলা বিএনপি।
দুপুরে বিএনপি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, রাঙামাটি আসার পথে আওয়ামী লীগ নেতা হাছান মাহমুদের নির্দেশে সন্ত্রাসীরা বিএনপি মহাসচিবের গাড়ি বহরে হামলা করে। এসময় তার সফরসঙ্গী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামিম ও কেন্দ্রীয় নেতা মেজর জেনারেল(অব.) রুহুল আমিন আহত হন। তাঁরা চট্টগ্রামের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানান। সাংবাদিক সম্মেলনে জানানো হয়, ত্রাণ নিয়ে আসা নেতৃবৃন্দের উপর হামলার কারণে রোববারের নির্ধারিত ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচি আপাতত স’গিত করা হয়েছে। তবে পরবর্তীতে আবারো বিএনপি’র পক্ষ থেকে হতাহতদের সহায়তা দেয়া হবে।
সাংবাদিক সম্মেলনে উপসি’ত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট দীপেন দেওয়ান, সহ উপজাতি বিষয়ক সম্পাদক কর্নেল (অব.) মনীষ দেওয়ান, জেলা বিএনপি সভাপতি শাহ আলম, সাধারণ সম্পাদক দীপন তালুকদার প্রমুখ।
সাংবাদিক সম্মেলন শেষে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করা হয়। সমাবেশে বক্তারা মহাসচিবের উপর হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
ত্রাণ বা পণ্যের সংকট নেই, জানালেন জেলা প্রশাসক
রাঙামাটিতে ত্রাণের কোনও সঙ্কট নেই জানিয়ে রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান বলেছেন, বাজারে খাদ্যেরও কোনও সঙ্কট নেই। যোগাযোগ সমস্যা সমাধানে কাপ্তাই চ্যানেলে লঞ্চের ব্যবস’া করা হয়েছে। পণ্য পরিবহনে বিনামূল্যে লঞ্চের ব্যবস’া করা হয়েছে। তিনি বলেন, বর্তমান রাঙামাটির যে সমস্যা তা সমাধানের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসকের সাথে সেনাবাহিনী, বিজিবি ও পুলিশ প্রশাসন সহযোগিতা করে যাচ্ছে।
রোববার সকাল সাড়ে এগারোটায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে জেলা প্রশাসনের এক জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় রাঙামাটির বর্তমান অবস’া উত্তরণে জেলা প্রশাসক স’ানীয় বাজার সমিতির নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ীসহ অন্যান্য পেশাজীবীদের সাথে মতবিনিময় করেন।
জেলা প্রশাসক বলেন, কেউ কেউ সঠিক তথ্য সংগ্রহ না করে ঢাকা কিংবা চট্টগ্রামে বসে রাঙামাটির ঘটনাকে ভিন্নভাবে দেশবাসীর কাছে উপস’াপন করছেন। কিন’ বাস্তব অবস’া সেরকম নয়। প্রথমদিন দুর্যোগের পর হয়তো বা কেউ কেউ কৃত্রিম মজুদ সৃষ্টি করে সমস্যা সৃষ্টি করেছিল, কিন’ বর্তমানে রাঙামাটিতে খাদ্য প্রচুর পরিমাণে মজুদ আছে। তিনি বলেন, বর্তমানে ৩০ হাজার অকটেন আনা হয়েছে। যা দিয়ে আগামী একমাস চাহিদা মেটানো সম্ভব হবে। তিনি এই দুর্যোগে সকলকে মানবিক হওয়ার আহ্বান জানান।