রাউজান থেকে পালানো সন্তানের জননী উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাউজান

রাউজান উপজেলার ১৩ নম্বর নোয়াপাড়া ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের চৌধুরী হাট ঘাটকুল এলাকার রুহুল অমিন সওদাগর বাড়ির মৃত আবদুর রহমান প্রকাশ এলাহি বক্সের পুত্র প্রবাসী এয়াকুব আলী প্রকাশ শেখ আহম্মদের স্ত্রী দুই সন্তানের জননী নাসিমা আকতার (২৫) গত ২০১৭ সালের ৬ অক্টোবর ভোরে একই এলাকার চৌধুরী হাট ঘাটকুল এলাকার ফুলমিয়া বস্তির বাড়ির মো. হাবিব প্রকাশ বোবা মিয়ার পুত্র সিএনজি অটোরিক্সা চালক ছাদেক (৩২) কে নিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় তার স্বামী এয়াকুব আলী প্রকাশ শেখ আহম্মদ প্রবাসে ছিল। নাসিমা পালিয়ে যাওয়ার সময় ১৮ ভরি স্বর্ণলংকার ও ৯ লাখ টাকা নিয়ে যায়। নাসিমা আকতার সিএনজি অটোরিক্সা চালক সাদেকের সাথে টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময়ে তার দুই সন্তান মো. শেখ জোনায়েদ সাকিব (৭), নাজাদ (৩) কে ফেলে চলে যায়। এ ঘটনায় নাসিমা আকতারের ভাবি নাসরিন সুলতানা পারুল বাদি হয়ে নাসিমা আকতারকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে বলে আদালতে নাসিমা আকতারের ভাসুর জালাল আহম্মদ, জা রোকসানা আকতার, সিএনজি অটোরিক্সা চালক ছাদেককে আসামি করে মামলা করে। এঘটনার পর গত ২০১৮ সালের ১৬ অক্টোবর নাসিমা আকতারের স্বামী দেশে ফিরে আসে তার স্ত্রী নাসিমা আকতার তার পাঠানো টাকা ও ঘর থেকে স্বর্ণলংকার চুরি করে নিয়ে সিএনজি চালক ছাদেককে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে তার পরিবারের সদস্য ও এলাকার লোকজন থেকে জানার পর গত ২০১৮ সালের ২২ অক্টোবর প্রবাসী এয়াকুব আলী প্রকাশ শেখ আহম্মদ বাদি হয়ে রাউজান থানায় মামলা করে। রাউজান নোয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই জাবেদ মামলাটি তদন্ত করেন। এস আই জাবেদ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত ৯ ফেব্রুয়ারি চন্দনাইশের একটি ভাড়া বাসা থেকে নাসিমা আকতার ও সিএনজি অটোরিক্সা চালক ছাদেককে উদ্ধার করে রাউজান থানায় নিয়ে আসে। নাসিমা আকতার ও সিএনজি অটোরিক্সা চালক ছাদেককে গতকাল আদালতে সোপর্দ করা হয় বলে রাউজান নোয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই জাবেদ জানান ।