রুশ গুপ্তচর হত্যাচেষ্টা

যুক্তরাজ্য থেকে ২৩ রুশ কূটনীতিক বহিষ্কার

এর আগে নার্ভ এজেন্ট ব্যবহারের ব্যাখ্যা চেয়ে রাশিয়াকে ২৪ ঘন্টার সময় বেঁধে দিয়েছিল বিট্রিশ প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে

সুপ্রভাত বহির্বিশ্ব ডেস্ক

পক্ষত্যাগী রুশ গুপ্তচর সের্গেই স্ক্রিপাল ও তার মেয়ে ইউলিয়ার ওপর লন্ডনে রাসায়নিক হামলার দায়ে যুক্তরাজ্যে নিয়োজিত ২৩ রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করা হয়েছে। এক সপ্তাহের মধ্যে তাদের দেশত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বুধবার এক বিবৃতিতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে এ ঘোষণা দেন। খবর বাংলাট্রিবিউন।
এর আগে পক্ষত্যাগী সাবেক রুশ গুপ্তচর ও তার মেয়েকে হত্যাচেষ্টার পেছনে ‘সম্ভবত মস্কোই জড়িত’ বলে মন্তব্য করেছিলেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে। সোমবার পার্লামেন্ট সদস্যদের উদ্দেশ্যে দেওয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, স্ক্রিপাল ও তার মেয়ের ওপর যে নার্ভ এজেন্ট ব্যবহার করা হয়েছে, তা রাশিয়ায় বানানো সামরিক ঘরানার। এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে রুশ রাষ্ট্রদূতকে তলবও করেছিল যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র দপ্তর। মঙ্গলবারের মধ্যে ‘বিশ্বাসযোগ্য প্রতিক্রিয়া’ না পেলে যুক্তরাজ্য পক্ষত্যাগী সাবেক রুশ গুপ্তচরের ওপর হামলার ঘটনাকে মস্কোর ‘বেআইনী বলপ্রয়োগ’ হিসেবে বিবেচনা করবে বলেও জানান মে।
‘হতে পারে এটি (হামলা) আমাদের দেশের বিরুদ্ধে রুশ সরকারের সরাসরি পদক্ষেপ, কিংবা হতে পারে তারা (রাশিয়া সরকার) ক্ষতিকর ও ভয়াবহ মাত্রায় ধ্বংসাত্মক এ নার্ভ এজেন্টের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছে, যার ফলে এটি অন্য কারও হাতে চলে গেছে,’ বলেন মে।
প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে সাবেক গুপ্তচর হত্যাচেষ্টাকে যুক্তরাজ্যের মাটিতে রাশিয়ার চালানো ‘রাষ্ট্র-পরিচালিত হামলা’ বলে ঘোষণা করেছেন। যুক্তরাজ্য এ পদক্ষেপ নিলে স্নায়ুযুদ্ধকালীন সময়ের পর প্রথম রাশিয়ার সঙ্গে তার সম্পর্ক একেবারে তলানিতে এসে ঠেকবে বলে মন্তব্য পর্যবেক্ষকদের। ব্রিটিশ তদন্ত কর্মকর্তাদের ধারণা, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনই এ হামলার অনুমোদন দিয়েছেন।
রুশ কর্তৃপক্ষ আল্টিমেটামে কর্ণপাত না করায় যুক্তরাজ্যে দায়িত্বরত ২৩ রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী।
এর আগে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের জন্য ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে’র বেঁধে দেওয়া আলটিমেটামের কড়া প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছিলেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ। মঙ্গলবার সংবাদ মাধ্যমগুলো এ খবর জানিয়েছে। টেরিজা মে এবং তার প্রশাসনের উদ্দেশ্যে লাভরভ বলেন, ‘অন্যকে আলটিমেটাম দেযার আগে তোমার জন্য ঢের ভালো কাজ হচ্ছে গিয়ে আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি তোমার যে বাধ্যবাধকতা রয়েছে তার প্রতি সম্মান দেখানো।’
লাভরভ মস্কোতে সাংবাদিকদের উপসি’তিতে এই মন্তব্য করেন। মন্তব্যে তিনি স্পষ্টতই আন্তর্জাতিক কেমিক্যাল ওয়েপন্স কনভেনশনের বিষয়ে টেরিজা মে কে স্মরণ করিয়ে দেন। লাভরভ বলেন, ব্রিটেনের উচিত ছিল তার মাটিতে ওই বিপজ্জনক রাসায়নিকটি কিভাবে গেল সে বিষয়ে জানতে চেয়ে মস্কোর কাছে আনুষ্ঠানিক অনুরোধ পাঠানো। কিন’ রাশিয়া এমন কোনো অনুরোধ ব্রিটেনের কাছ থেকে পায়নি।
গত ৪ মার্চ সালসবেরি শহরের একটি বিপণিকেন্দ্রের বেঞ্চে সের্গেই স্ক্রিপাল এবং তার ৩৩ বছরের কন্যা ইউলিয়াকে অচেতন অবস’ায় পাওয়া যায়। পরে এ ঘটনায় ব্যবহৃত নার্ভ এজেন্টের সন্ধান পায় ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ। কন্যাকে নিয়ে সের্গেই স্ক্রিপাল যেখানে দুপুরের খাবার খেয়েছিলেন- জিজ্জি নামের সলসবেরির ওই পিজার দোকানেই তার স্নায়ুকে আঘাতকারী এই নার্ভ এজেন্টের খোঁজ মিলেছে। অন্তত পাঁচটি স’ানে ফরেনসিক তদন্ত চালানোর পর পিজার দোকানে এর সন্ধান মিলে।
জিজ্জিতে দুপুরের খাবারের অন্তত দুঘণ্টা পর সাবেক ওই রুশ গুপ্তচর ও তার মেয়েকে অত্যন্ত সঙ্কটাপন্ন অবস’ায় কাছের একটি পার্ক থেকে উদ্ধার করা হয়। তাদের উদ্ধারে যাওয়া একজন পুলিশ কর্মকর্তাও গুরুতর অসুস’ হয়ে পড়েছেন। সের্গেই স্ক্রিপাল এবং তার মেয়ে ইউলিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
উল্লেখ্য, নার্ভ এজেন্ট হচ্ছে উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন বিষাক্ত রাসায়নিক, যা স্নায়ুতন্ত্রকে বিকল বা অকার্যকর করে দিতে পারে। এতে দৈহিক কর্মক্ষমতা বন্ধ হয়ে যেতে পারে।