যানজটের তিক্ত অভিজ্ঞতা প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠানে বললেন এডিবি কর্মকর্তা

সুপ্রভাত ডেস্ক

যানজট নিয়ে রাজধানীবাসীর যন্ত্রণার মধ্যেই প্রধানমন্ত্রীর সামনে নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরলেন এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) ভাইস প্রেসিডেন্ট ওয়েনচাই ঝ্যাং। এডিবির ভাইস প্রেসিডেন্ট মঙ্গলবার রাতে ঢাকায় নামার পর বিমানবন্দর থেকে ১৪ কিলোমিটার দূরত্বের হোটেলে পৌঁছতে সময় লেগেছিল এক ঘণ্টা। বুধবার বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরামের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে গিয়ে নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন ওয়েনচাই ঝ্যাং। নিজের তিক্ত অভিজ্ঞতা তুলে ধরে ঢাকার যানজটের সমস্যা মেটাতে এডিবি পক্ষ থেকে সহযোগিতা করার আগ্রহও প্রকাশ করেন ওয়েনচাই ঝ্যাং। এডিবির ভাইস প্রেসিডেন্টের বক্তব্যের সময় মঞ্চে শেখ হাসিনার সঙ্গে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতও ছিলেন। অবকাঠামোর সীমাবদ্ধতার পাশাপাশি ঢাকার যানজটকেও বিদেশি বিনিয়োগ বাড়ার ক্ষেত্রে অন্তরায় হিসেবে দেখা হয়। যানজটের কারণে ঢাকার সড়কের গতি শ্লথ হয়ে প্রতিদিন ৩২ লাখ কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে বলে গত বছরের জুলাইয়ে বিশ্ব ব্যাংকের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছিলো।
প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘গত ১০ বছরে ঢাকায় যান চলাচলের গড় গতি ঘণ্টায় ২১ কিলোমিটার থেকে ৭ কিলোমিটার পর্যন্ত নেমে এসেছে।’
পরিবেশ আন্দোলন বাংলাদেশের ২০১৪ সালের এক গবেষণায় দেখানো হয়, যানজটের কারণে দিনে ৮০ লাখ কর্মঘণ্টা নষ্ট হয়।
সড়ক ও জনপথ বিভাগের ২০১৩ সালে এক গবেষণায় উল্লেখ করা হয়, শুধু যানজটে কর্মঘণ্টা নষ্টের জন্য বছরে ক্ষতি হয় ১২ হাজার কোটি টাকা। গত কয়েক বছরে বেশ কয়েকটি ফ্লাইওভার নির্মাণের পর যানজটের দুর্ভোগ থেকে মুক্তি মেলেনি ঢাকাবাসীর।