যাত্রীবেশে গাড়ি ‘ছিনতাই’ করে ওরা পাঁচজন

নিজস্ব প্রতিবেদক

নগরীর এ কে খান মোড় থেকে মঙ্গলবার রাতে ছিনতাই হওয়া একটি প্রাইভেট কার সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুর থেকে গতকাল উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পাঁচ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলো, মো. রাব্বি, মো. জাহেদ আলম, মো. মহিউদ্দিন, মো. তারেক এবং সাহাব উদ্দিন।
ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম মহিউদ্দিন সেলিম জানান, গ্রেফতার হওয়া পাঁচজন পেশাদার গাড়ি ছিনতাইকারী। যাত্রীবেশে নগরে ঘুরে বেড়ায় তারা।
তিনি আরও জানান, উদ্ধার করা গাড়ির মালিক এ কে আজাদ। তিনি ঢাকায় রেন্ট এ কারের ব্যবসা করেন। থাকেন কুড়িলে। তার গাড়ি চালক আসলাম। তিনি গত সোমবার দিবাগত রাতে যাত্রী নিয়ে ঢাকা থেকে কক্সবাজার জেলার চকরিয়া যান। ১৮ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার ফেরার পথে এ কে খান মোড়ে কারটি যাত্রীবেশে ভাড়া করেন তারেক। এসময় সহযোগী চারজনকে ওই গাড়িতে তুলে ঢাকার দিকে রওনা হন তিনি। ভাটিয়ারি এলাকায় পৌঁছানোর পর আসলামকে মারধর করে গাড়িটির নিয়ন্ত্রণ নেয় তারা।
এরপর আসলামকে নিয়েই তারা চলে আসে নগরীর দেওয়ান হাট ফ্লাইওভারে। এক পর্যায়ে আসলামকে ফেলে দিয়ে কারটি নিয়ে চম্পট দেয় তারা। এর আগে আসলামের মোবাইল সিম কেড়ে নেয় ছিনতাইকারীরা। বুধবার গাড়ির মালিক আজাদকে ফোন করে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে ছিনতাইকারীরা। গাড়ি ফিরিয়ে নিতে আজাদকে চট্টগ্রাম শহরে আসতে বলেন তারা। বুধবার চট্টগ্রাম আসেন আজাদ। আসলামকে সঙ্গে নিয়ে ডবলমুরিং থানায় অভিযোগ করেন আজাদ। এরপর গাড়ি উদ্ধার অভিযানে নামে পুলিশ। এদিকে ছিনতাইকারীদের সাথে কৌশলে কথা চলতে থাকে আজাদের।
গাড়িটি নিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় ফৌজদারহাট বাইপাস এলাকায় আসে ছিনতাইকারীরা। সেখানে পৌঁছে আজাদও। আড়ালে থাকে পুলিশ। কথা বলার এক পর্যায়ে জাহেদ ও রাব্বি আজাদকে ওই প্রাইভেট কারে তোলার চেষ্টা করে ছিনতাইকারীরা। এসময় জাহেদকে ধরে পুলিশ। অন্যরা গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে জাহেদের তথ্য মতে সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুর এলাকা আজাদের প্রাইভেট কারটি উদ্ধার করতে সক্ষম হয় পুলিশ। পরে ভাটিয়ারি এবং নগরীর বিভিন্ন স’ান থেকে রাব্বি, তারেক মহিউদ্দিন ও শাহাবউদ্দিনকে গ্রেফতার করা হয়।
পাঁচজনের বিরুদ্ধে ডবলমুরিং থানায় একটি মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে মহানগর হাকিম আল ইমরানের আদালতে পাঠানো হলে প্রাইভেট কার ছিনতাইয়ের কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেয় জাহেদ। বাকি চারজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে আদালতে সাত দিনের করে রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।