মৌলিক থিয়েটার নিয়ে ভাবার সময় এসেছে

বিজ্ঞপ্তি

‘গ্রম্নপ থিয়েটা আন্দোলন-নতুন কাঠামোর সন্ধানে’ শীর্ষক নাট্যভাবনা আদান-প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, সত্তরের দশকে যে গ্রম্নপভিত্তিক নাট্যচর্চা শুরম্ন হয়েছিল, সময়ের বাসত্মবতায় এই শিল্পের সৃজনে এবং দায়বদ্ধতা ক্রমাগত পলস্নবিত হয়েছে। আঙ্গিক এবং মৌলিক ভাবনায় বিশ্বনাট্যের পাশাপাশি বাংলানাট্যের চর্চা, ইতিহাস এবং পর্যালোচনায় ব্যাপক কর্মচিনত্মা পরিলড়্গিত হচ্ছে আমাদের মঞ্চে। কিন’ এ শিল্পচর্চার নতুন কাঠামো কি হতে পারে বা মৌলিক থিয়েটার ভাবনা, উন্নয়ন কি হতে পারে তা বোধ হয় ভাববার সময় এসেছে।

গতকাল সকাল সাড়ে দশটায় থিয়েটার ইনস্টিটিউট চট্টগ্রামে আয়োজিত পাঁচদিনব্যাপী তির্যক নাট্যমেলার তৃতীয় দিনে টিআইসি গ্যালারিতে থিয়েটার ভাবনায় বিষয় উপস’াপন করেন নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার এবং নাসিরউদ্দিন ইউসুফ।

অনুষ্ঠানে  উপসি’ত ছিলেন অধ্যাপক আবদুস সেলিম, ড. আফসার আহমেদ, মান্নান হীরা, মলয় ভৌমিক, জিয়াউল হাসান কিসলু, দেবপ্রসাদ দেবনাথ, গোলাম সরোয়ার, অলক ঘোষ, ম. সাইফুল আলম, আকবর রেজা, সনজীব বড়-য়া, তৌফিক হাসান ময়না, মোহাম্মদ বারী, শাহাদাত হোসেন খান হীলু, গাজী রাকায়েত, অলোক বসু, দেবাশীষ ঘোষ, আকবর রেজা, বিক্রম চৌধুরী, আইরিন পারভিন লোপা, সাইদুর রহমান লিপন, মীর বরকত, ড. কুনত্মল বড়-য়া, দুলাল দাশগুপ্ত, মোসলেম উদ্দিন সিকাদার, আকতারম্নজ্জামান, অননত্ম হিরা, আলী আহমেদ মুকুল, শামীমাশওকতলাভলী, খোরশেদুল আলম, আলী হায়দার, রওশন জান্নাত রম্নশনী ও শামীম হাসান প্রমুখ

বক্তারা আরো বলেন, আমাদের থিয়েটার চর্চার ইতিহাসে বড় দুর্ভাগ্য হচ্ছে, থিয়েটারকে কোনো রকমের আশ্রয় না দেয়া। বক্তারা থিয়েটারে নান্দনিকতার কথা উলেস্নখ করে বলেন, নাটকে আঙ্গিক ভাবনা এবং কাঠামো নির্মাণে নান্দনিকতা প্রধান বিষয়। এ ড়্গেত্রে বাংলাদেশ গ্রম্নপ থিয়েটার ফেডারেশন, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় প্রধান ভূমিকা পালন করতে পারে। বিকাল তিনটায় টিআইসি’র মুক্ত মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় শিশু কিশোরদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা। বিভিন্ন স্কুলের শতাধিক শিড়্গার্থী এতে অংশ নেয়। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মাঝে তির্যকের পড়্গ থেকে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

বিকাল চারটায় শিশুতোষ গল্পবলা অনুষ্ঠানে গল্প বলেন তামান্না তিথি। সন্ধ্যা সাতটায় তির্যক নাট্যদল মিলনায়তনে পরিবেশন করে প্রাচীন গ্রিক ট্র্যাজেডি সফোক্লিসের ‘ইডিপাস’ নাটকটি।