মেক্সিকোর টানা দ্বিতীয় জয়

দক্ষিণ কোরিয়ার বিদায়

সুপ্রভাত ডেস্ক

বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে ১-০ গোলে হারিয়ে চমকে দিয়েছিল মেক্সিকো। প্রথম ম্যাচে সেই জয়ের আত্মবিশ্বাস কাজে লাগিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষেও জিতল তারা। রোস্তভ অ্যারেনায় শনিবার এশিয়ান প্রতিপক্ষকে ২-১ গোলে হারিয়ে শেষ ষোলোর পথে বড় ধাপ ফেলেছে মেক্সিকো। ‘এফ’ গ্রুপের পরের ম্যাচে জার্মানি সুইডেনের বিপক্ষে না জিতলেই টানা সপ্তমবার নকআউট খেলা নিশ্চিত হবে মেক্সিকোর। দুই ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপে সবার উপরে তারা। ২০০২ সালের পর বিশ্বকাপে প্রথমবার শুরুর দুটি ম্যাচ জিতল মেক্সিকো। হাভিয়ের এর্নেন্দেস ১২ মিনিটে লাইউনের ফ্রি কিক থেকে দূরের পোস্টে বল পেয়ে লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি। গোলপোস্টের পাশ দিয়ে বল চলে যায়। ২২ মিনিটে একসঙ্গে তিনবার সুযোগ পেয়েছিল কোরিয়া। কিন’ সন হিউং মিনের দুটি শট ব্লক করেন সালসেদো ও মোরেনো। তৃতীয় শটটি গোলপোস্টের পাশ দিয়ে চলে যায়। ২ মিনিট পর কোরিয়া মেক্সিকোকে গোলের সুযোগ করে দেয়। বক্সের মধ্যে জ্যাং হিউন সু হাত দিলে বল ঠেকালে পেনাল্টি পায় মেক্সিকো। ২৬ মিনিটে দক্ষিণ কোরিয়ার গোলরক্ষক চো হিউন উকে ভুল দিকে পাঠিয়ে স্পট কিকে লক্ষ্যভেদ করেন কার্লোস ভেলা। লাইউন ২৮ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করার দারুণ সুযোগ পেয়েও ব্যর্থ হন। তার শক্তিশালী শট ক্রসবারের উপর দিয়ে পাঠিয়ে কর্নার বানান চো। জার্মানির বিপক্ষে গত ম্যাচের গোলদাতা লোসানো গোলমুখের সামনে থেকে আকাশের দিকে বল মারেন। বিরতির পর ফিরে ৫৬ মিনিটে কি সুং ইয়ুংয়ের প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে দেন মেক্সিকো গোলরক্ষক গিলের্মো ওচোয়া। ৫৯ মিনিটে চোর কঠিন পরীক্ষা নেন গুয়াদরাদো। দারুণ সেভ করে মেক্সিকোকে ব্যবধান দ্বিগুণ করতে দেননি দক্ষিণ কোরিয়ার গোলরক্ষক। মেক্সিকোর জয় সুনিশ্চিত হয় ৬৬ মিনিটের গোলে। লোসানোর অ্যাসিস্টে দুজন ডিফেন্ডারকে বোকা বানিয়ে দেশের হয়ে ৫০তম গোল করেন এর্নেন্দেস। ইনজুরি সময়ের তৃতীয় মিনিটে সন একটি গোল শোধ দিয়ে ম্যাচে কিছুটা উত্তেজনা ফিরিয়েছিলেন। কিন’ পরে আর সমতা ফেরানো গোল পায়নি দক্ষিণ কোরিয়া। এতে বিদায় নিশ্চিত হয় ২০০২ সালের বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল খেলা দলটির। খবর বাংলাট্রিবিউন।