মিলেমিশে

রকিবুল ইসলাম
01+Galpo_heron-frog

ছোট একটি জলাশয়। সেখানে বাস করে ছোট বড় অনেক মাছ। পুঁটি, দাতিনা, চিংড়ি, টাকি, শোল সহ আরো কয়েক প্রজাতির মাছ। শোল আর টাকি খুব রাক্ষুসে স্বভাবের মাছ। ছোট জাতের মাছদের ধরে ধরে খেত।
একদিন সব মাছ মিলে শান্তি আলোচনায় বসে। সবাইকে বোঝানো হয়। সারাদিন আলোচনা করে সবাই সিদ্ধান্ত নিল। স্বজাতিদের খাওয়া ঠিক না। আমরা নিজেরা যদি নিজেদের খাই, তবে কেমন দেখায়! চলো, আমরা নিজেদের মধ্যে শান্তিচুক্তি করি। এখন থেকে আমরা সবাই ভাই ভাই। ওইদিন থেকে মাছরা স্বাধীনভাবে বসবাস করছিল।
কিন্তু এই স্বাধীনতা বেশিদিন টিকলো না। কোথা থেকে একটি বক এসে প্রতিদিন মাছ ধরে খাওয়া শুরু করল। বক পুঁটিমাছ খেতে পছন্দ করে। প্রতিদিন একটি দুটি পুঁটিমাছ নিখোঁজ হচ্ছে। মাছরা ভীষণ বিপদে পড়ে গেল। কীভাবে বকের হাত থেকে বাঁচা যায়? মিটিং ডাকা হল। মিটিংয়ে ছোট বড় সকল মাছ উপস্থিত হল। সবার মতামত শোনা হল। কেউ কোন উপায় বের করতে পারল না। এমন সময় একটি ব্যাঙ এসে হাজির।
ব্যাঙ বলে, আমি তোমাদের একতায় অভিভূত। তোমরা সবাই মিলেমিশে একসাথে থাকো, আমার খুব ভাল লাগে। তাই তোমাদের বিপদে একটু সাহায্য করতে পারলে ধন্য হব।
শোলমাছ ব্যাঙকে বলল, তুমি কীভাবে সাহায্য করতে পারবে?
ব্যাঙ বলল, আমরা বন্ধুদের নিয়ে আড়ালে লুকিয়ে থাকব। বক যখন মাছ খেতে পানিতে নামবে, অমনি আমি গিয়ে বকের পা জড়িয়ে ধরব। সাথে সাথে আমার বন্ধুরাও। ব্যাস, এভাবে সবাই মিলে আটকিয়ে ফেলব বককে। ব্যাঙের কথায় সবাই রাজি হয়ে যায়।
পরদিন বক আসে জলাশয়ে। হাঁটু পানিতে নেমে দাঁড়িয়ে থাকে মাছের আশায়। আশপাশে কোন মাছ নেই। বক চুপচাপ দাঁড়িয়ে থাকে। ব্যাঙ সুযোগ বুঝে তার বন্ধুদের নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে। বক উড়ার চেষ্টা করে। কিন্তু ব্যাঙদের সম্মিলিত শক্তির সাথে পেরে ওঠে না। ব্যাঙরা বককে টেনে জঙ্গলের সাথে পেঁচিয়ে ফেলে। বকটাও অনেক দুর্বল হয়ে যায়। মাছরা ছুটে আসে। বকটাকে পানিতে কুপোকাত করে। তারপর সবাই মিলে আনন্দে মেতে ওঠে।

আপনার মন্তব্য লিখুন