মিরসরাই হানাদারমুক্ত দিবস আজ

নিজস্ব প্রতিনিধি, মিরসরাই

শুক্রবার মিরসরাই হানাদার মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের ডিসেম্বর মাসের এই দিনে মিরসরাই উপজেলা পাকহানাদার মুক্ত হয়। ৭ মার্চে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণ শোনর পর থেকেই মিরসরাইয়ের সর্বস্তরের জনতা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত গঠন শুরু করে। দিবসটি উপলক্ষে সকাল ১০ টায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড ও উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা শহিদ মিনারে র‌্যালি এবং মীর কমিউনিটি সেন্টারে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।
তৎকালীন বিএলএফ ডেপুটি কমান্ডার ও মিরসরাই সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জাফর উদ্দিন আহাম্মদ চৌধুরী জানান, এইদিন সকাল বেলা তিনি সুফিয়া রোডে এসে দেখতে পান, ওয়ারলেস স্টেশন থেকে পাকবাহিনীর একটি জিপ তীব্রগতিতে বেরিয়ে যাচ্ছে এবং কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই প্রচণ্ড শব্দে ওয়ারেলেস স্টেশনটি ধ্বংস হয়ে যায়। শত্রুর অবস্থান নিশ্চিত হয়ে তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে সকল মুক্তিযোদ্ধার কাছে খবর পাঠানো হয়, যোদ্ধারা যেন সুসংগঠিত হয়ে মিরসরাই থানা সদরের দিকে অগ্রসর হয়। বেলা প্রায় ১০টা নাগাদ মুক্তিযোদ্ধা জাফর উদ্দিন আহম্মদের বিএলএফ গ্রুপের মুক্তিযোদ্ধাসহ প্রায় দু’শ মুক্তিযোদ্ধা মিরসরাই সদরের পূর্বদিক ছাড়া বাকি তিনদিক ঘিরে ফেলে। বেলা প্রায় ১১টার দিকে মুক্তিযোদ্ধারা তিন দিক থেকে সংগঠিত হয়ে শত্রুর বিরুদ্ধে একযোগে আক্রমণ শুরু করে। শুরু হয় পাকসেনা ও মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে গুলি বিনিময়। পাকসেনাদের অবস্থান ছিল মিরসরাই হাই স্কুল, মিরসরাই থানা, মিরসরাই সিও অফিস। বৃষ্টির মতো গুলি বিনিময়ের এক পর্যায়ে মনে হলো, পাকসেনাদের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিরোধ আসছে না। মুক্তিযোদ্ধারা সতর্কভাবে শত্রুর অবস্থানের দিকে গিয়ে দেখেন, পাকসেনারা পলিয়েছে। মুক্তিযোদ্ধারা থানায় প্রবেশ করে ওদের আটটি রাইফেল উদ্ধার করে। পাকসেনারা চট্টগ্রামের দিকে পালিয়ে গেছে বলে পরে জানা যায়। চট্টগ্রামের কোনো অঞ্চল তখনো মুক্তির স্বাদ পায়নি। মিরসরাই শত্রুমুক্ত হয়েছে-এ কথা বাতাসে দ্রুত ছড়িয়ে যায়। মুহূর্তে চতুর্দিক থেকে জয় বাংলা স্লোগানে মুখরিত মিছিল আসতে থাকে। হাজারো জনতার ঢল নামে মিরসরাই হাই স্কুল মাঠে। মৌলভী শেখ আহম্মদ কবির কোরআন তেলাওয়াত করেন। পরে জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা জাফর উদ্দিন আহাম্মদ চৌধুরীসহ সবাই জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। ঘোষণা করা হয়, আজ ৮ ডিসেম্বর ১৯৭১ সাল। মিরসরাই ভূখণ্ড পাকবাহিনীমুক্ত একটি স্বাধীন এলাকা। সেই থেকে ৮ ডিসেম্বর মিরসরাইয়ে উদযাপিত হয়ে আসছে শত্রুমুক্ত দিবস।
মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাইফুল কবির জানান, মিরসরাই হানাদারমুক্ত দিবস উপলক্ষে শুক্রবার সকালে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার থেকে র‌্যালি বের করা হবে। র‌্যালি শেষে মিরসরাই হানাদারমুক্ত দিবস নিয়ে মীর কমিউনিটি সেন্টারে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।