অস্ত্র-গুলি-মাদক উদ্ধার

মিরসরাইয়ে র্যাবের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

নিজস্ব প্রতিনিধি, মিরসরাই

মিরসরাইয়ে র্যাবের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক যুবক নিহত হয়েছে। বুধবার ভোরে উপজেলার জোরারগঞ্জ থানার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পূর্ব দুর্গাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
নিহত যুবকের নাম দিদারুল আলম সোহেল (৩৫)। সে বারইয়ারহাট পৌরসভার উত্তর সোনাপাহাড় এলাকার মাহবুব আলম চৌধুরীর ছেলে। এসময় একটি বিদেশি পিস্তল, ৪ রাউন্ড গুলি ও ৬শ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। র্যাবের ভাষ্য, নিহত সোহেল মাদক চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত ছিলেন।
র্যাব-৭ ফেনী কার্যালয়ের স্কোয়াড্রন লিডার শাফায়াত জামিল ফাহিম জানান, একটি সংঘবদ্ধ মাদক ব্যবসায়ী চক্র বিপুল পরিমাণ মাদক নিয়ে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামের দিকে আসছে -এমন গোপন তথ্য পান তারা। এ সময় র্যাবের পেট্রোল টিম তাদের ধাওয়া করে।
র্যাবের দাবি, জোরারগঞ্জ থানাধীন ভাঙা দোকান এলাকায় তাদের থামানোর জন্য সিগন্যাল দিলেও তারা তা অমান্য করে এবং মাইক্রোবাসের ভেতর থেকে র্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। এসময় র্যাবও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়লে একজন গুলিবিদ্ধ হয়।
র্যাব জানায়, মাদক ব্যবসায়ীরা তাদের মাইক্রোবাস ফেলে আরেকটি মাইক্রোবাসে করে পালিয়ে যায়। ঘটনাস’লে একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস’ায় পাওয়া যায়। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে মিরসরাই উপজেলা স্বাস’্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই অজ্ঞাতনামা আহতকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরে ঘটনাস’ল তল্লাশি করে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, ৪ রাউন্ড গুলি, ৬শ বোতল ফেন্সিডিল এবং একটি নোহা মাইক্রোবাস উদ্ধার করে। এসময় দুজন র্যাব সদস্য আহত হলে তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়। নিহতের লাশ জোরারগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।
এদিকে নিহত সোহেলের মা আনোয়ারা বেগম জানান, তার ছেলে সোহেল মাইক্রোবাস চালান। তাকে কখনো কোনো খারাপ কাজ করতে দেখেননি। স্ত্রীসহ তার তিন সন্তান রয়েছে।
জোরারগঞ্জ থানাধীন বারইয়ারহাট মাইক্রোস্ট্যান্ডের কয়েকজন চালক নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, সোহেলকে কখনো কোনো খারাপ কাজে জড়িত থাকতে দেখেননি তারা।
জোরারগঞ্জ থানার সেকেন্ড অফিসার দীনেশ চন্দ্র দাশগুপ্ত ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, নিহত সোহেলকে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে মামলা দায়েরের প্রস’তি চলছে।