ঘরে ঘরে চলছে পিঠা তৈরির মহোৎসব

মিরসরাইয়ে কৃষকের ঘরে নতুন ধান

নিজস্ব প্রতিনিধি, মিরসরাই

চলছে অগ্রহায়ণ মাস। কৃষকরা ব্যস্ত আমন ধান কাটার উৎসবে। কেউ ধান কাটছে। কেউ তুলছে। নতুন ধানের চাল, শীতকালীন নানা সবজি ও বিভিন্ন রকমের পিঠার আয়োজন চলছে প্রতিটি ঘরে ঘরে। অনেকে নতুন চালের ভাত দিয়ে নিমন্ত্রণ করবেন জামাইকে। তাই ঘরে নতুন ধান এলেই অতিথিদের আগমনও বেড়ে যায়।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভায় ২০ হাজার ৫শত হেক্টর জমিতে আমন চাষ হয়েছে। ইতিমধ্যে ঘরে উঠতে শুরু করেছে ধান। অনেকে নতুন ধানের পিঠা পায়েস তৈরি করছে। ঘরে ঘরে চলছে উৎসবের আমেজ। তবে আগের সেই উৎসবের আমেজ এখন নেই। ধান চালে লোকসান হওয়ায় কৃষকরা ঝুঁকছে সবজি চাষে। তবুও প্রত্যেক বছর আমন ধান এলে গ্রামে উৎসবের আমেজ দেখা দেয়।
কৃষকরা জানান, আগে আমন ধান ঘরে এলে নবান্ন উৎসব হতো। ঘরে ঘরে পিঠা পায়েস তৈরির ধুম পড়ে যেত। বাড়ির জামাইদের নিমন্ত্রণ করে খাওয়ানো হতো। কিন্তু আগের সেই আমেজ এখন নেই। কমেছে ধানের চাষ। একদিকে কমছে কৃষি জমি। অন্যদিকে কৃষক ধান চাষে আগ্রহ হারাচ্ছে। তারা আরো জানান, আমন ধান পাকালে কৃষকরা ধানের গোলা ও কাস্তে প্রস্তুত করতো। তাই কামার পাড়া ও গোলা তৈরির কারিগরদের ব্যস্ততা বেড়ে যেত। এখন সেই সব দৃশ্য চোখে পড়ে না।
উপজেলার হিঙ্গুলী ইউনিয়নের পূর্ব হিঙ্গুলী গ্রামের কৃষক তোষন দে জানান, এখন ধান চাষে কৃষকরা লোকসান গুনছে। তাই ধান চাষের বদলে সবজি চাষে আগ্রহী হচ্ছে তারা। তবুও আমন ধান এলে গ্রামে গ্রামে উৎসবের আমেজ দেখা যায়।
সরেজমিনে উপজেলার হিঙ্গুলী, করেরহাট, ওয়াহেদপুর, জোরারগঞ্জ, কাটাছরা ইউনিয়নে দেখা যায়, কৃষকরা আমন ধান ঘরে তুলতে ব্যস্ত। কৃষাণিরা ব্যস্ত নতুন ধানের পিঠা পায়েস তৈরিতে। ঘরে ঘরে অতিথিদের আগমন বেড়েছে।
মিরসরাই উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. বুলবুল আহম্মদ জানান, আমন ধান ঘরে তোলায় ব্যস্ত হয়ে উঠছে কৃষকরা। ইতিমধ্যে অনেকে ধান ঘরে তুলে ফেলেছে। তবে কিছু কিছু ইউনিয়নের এখনো ধান ঘরে উঠেনি।