মাইজভান্ডার দরবার শরীফ অলিদের আঁতুরঘর : চবি উপাচার্য

বিজ্ঞপ্তি

‘মহান অলিদের পথ সুফিদের পথ। সুফিবাদ ছাড়া মানব জীবনে সফলতা সম্ভব নয়। আত্মশুদ্ধি অর্জনে মানুষ আল্লাহর অলিদের দরবারে আসা যাওয়া করে। মাইজভান্ডার দরবার শরীফ অলিদের আঁতুরঘর। গাউসুল আজম মাইজভান্ডারীর (ক.) নজরে অসংখ্য অলি পৃথিবীতে বিরাজ করছে। অলিদের সান্নিধ্যে গেলে মানুষ নিজেকে পরিশুদ্ধ করার সুযোগ পায় এবং আল্লাহর প্রিয় বান্দা হিসেবে পরিণত হয়।’
গত ১২ মার্চ নগরের মুসলিম হলে গাউসুল আজম মাইজভান্ডারীর (ক.) খালাত ভাই এবং তার জানাজা শরীফের ইমাম মুফতীয়ে আজম সৈয়দ মছিহ্ উল্লাহ মির্জাপুরী (ক.) শততম বার্ষিক ওরস উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন।
হাটহাজারীর মির্জাপুর দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন সৈয়দ মছিউল করিম মির্জাপুরী (মাজিআ) সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।
বিশেষ অতিথি ছিলেন ইমাম গাজ্জালী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সিনিয়র প্রভাষক এবং জীব বিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর মমতাজ আহমেদ, মাইজভান্ডারী গাউসিয়া হক কমিটি বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় পর্ষদ সদস্য মো. শাহেদ আলী চৌধুরী। বিশেষ বক্তা ছিলেন খাজা গরিব উল্লাহ শাহ জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আনিসুজ্জামান আল কাদেরি, সৈয়দ কমর আলী মিয়াজি জামে মসজিদের খতিব ইলিয়াছ আল কাদেরি।
এসময় আরও উপসি’ত ছিলেন মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবদুর রহিম চৌধুরী, সাদার্ন ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক এস এম নূর হোসাইন।সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস’াপন করেন মো. তাজুল ইসলাম রাজু।
বক্তারা আরও বলেন, মাওলানা মছিহ্ উল্লাহ মির্জাপুরী (ক.) বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ মোস্তফা (স.) রক্তিয় ধারা এবং আওলাদে রাসুল। তিনি ছিলেন শিক্ষায় দীক্ষায় সমসাময়িক আলেম উলামাদের শিরোমণি। তৎকালীন উলামারা তাকে বড় মাওলানা বলে সম্বোধন করতেন। তার মাঝে খোদায়ী শক্তির বিকাশ ঘটেছিল। আল্লাহর শক্তির ধারকবাহক, রাসুল (স.) এর পূর্ণমাহাত্মের প্রকাশ ও বিকাশ গাউসুল আজম মাইজভান্ডারী (ক.)। সেমিনারে মির্জাপুর দরবার শরীফের নায়েবে মোন্তাজেম শাহজাদা সৈয়দ শাহাদাৎ হোসাইন সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন আবু শাহাদাত সায়েম সুমন।

আপনার মন্তব্য লিখুন