মাইজভাণ্ডারী একাডেমির সমাবেশশিশু-কিশোররা আমাদের

বিজ্ঞপ্তি

ভবিষ্যত নির্মাণ করবেবাংলাদেশে প্রবর্তিত একমাত্র ত্বরিকা, ত্বরিকায়ে মাইজভাণ্ডারীয়ার প্রতিষ্ঠাতা গাউসুল আযম হযরত মাওলানা শাহ্সুফি সৈয়দ আহমদ উল্লাহ মাইজভাণ্ডারী (ক.)’র ১১৩তম উরস উপলক্ষে শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী (ক.) ট্রাস্টের উদ্যোগে ১০দিন ব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে প্রতি বছরের ন্যায় মাইজভাণ্ডারী একাডেমি আয়োজিত ‘যুগপূর্তি ও শিশু-কিশোর সমাবেশ’ ২০১৯ এর প্রতিযোগিতা নগরীর নাসিরাবাদ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে গতকাল অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় ক্বিরাত, হাম্দ ও নাত, মাইজভাণ্ডারী সংগীত, রবীন্দ্র সঙ্গীত, নজরুল সঙ্গীত, কবিতা আবৃত্তি, উপসি’ত বক্তৃতা, রচনা ও চিত্রাঙ্কন বিষয়ে দুই সহস্রাধিক শিশু-কিশোর অংশগ্রহণ করে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, সাংবাদিক ও শিশু সাহিত্যিক রাশেদ রউফ।
মাইজভাণ্ডারী একাডেমির সভাপতি চবি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ হেলাল উদ্দীন ও প্রধান সমন্বয়ক এইচ এম রাশেদ খান এর সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন অধ্যাপক এ ওয়াই এম জাফর, মীর মোহাম্মদ তরিকুল আলম, এম মাকসুদুর রহমান হাসনু, নুরুল করিম নুরু, আশরাফুজ্জামান আশরাফ, আবুল মনসুর, আশরাফ উদ্দিন সিদ্দিকী, মেজবাহ উদ্দিন, মো. মোরশেদুল করিম চৌধুরী, লায়ন ডা. বরুণ কুমার ভট্টাচার্য্য, এইচ আর মেহেবুব জিকু।
এতে বিচারকের দায়িত্ব ছিলেন ফারুক তাহের, মো. মোজাহেদুল ইসলাম, আয়েশা হক শিমু, শ্রাবনী দাশ গুপ্তা, অঞ্চল চৌধুরী, সেজুতি দে, শাশ্বতী তালুকদার, সুভাগত চৌধুরী, আলা উদ্দিন তাহের, সুতপা চৌধুরী, পাপনী ভট্টাচার্য্য, লিজা চক্রবর্তী, সৈয়দ মো. হোসেন, আবদুল্লাহ আল হান্নান, সুলতানা মোতাব্বিন, আব্দুর রশিদ খান, টিনা, লিজা আফরোজ, জিকে দত্ত, কাজী বখতেয়ার উদ্দিন, ইলমা বিনতে বখতেয়ার, শাহাজাহান খান, নাজমুল হাসান জুনুন, হাসান জাহাঙ্গীর, সুব্রত দাশ, উত্তম কুমার বড়-য়া, এস এম মুর্শিদ উল আলম প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, শিশু-কিশোররা আমাদের ভবিষ্যত নির্মাণ করবে। আগামী দিনে তারাই আমাদের বাতিঘর হিসাবে পথ দেখাবে। তাই শিক্ষা জীবন থেকেই তাদেরকে সৎ ও যোগ্য, মানবিক, বিনয়ী ও উদার প্রবণ হিসাবে গড়ে তুলতে হবে। মহানুভবতা ও উদারতার শিক্ষা প্রজন্মের মাঝে তুলে ধরতে পারলে তারা অবশ্যই আলোকিত মানুষ হিসেবে বেড়ে উঠবে।