মহান বিজয় দিবসের আলোচনা সভা

সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার

বিজ্ঞপ্তি
dsf

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন সংগঠন আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক সমাজ বিনির্মাণে আমাদের আরো অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। বিজয়ের শপথ হোক সুখী, সমৃদ্ধ, জঙ্গিবাদমুক্ত সোনার বাংলা গঠন।
দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ
মহান বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ বলেন, বিজয়ের গৌরবে গৌরবান্বিত হবার দিন ১৬ ডিসেম্বর। গৌরব, আনন্দ, অহংকার, আত্মমর্যাদা ও আত্মোপলব্ধির দিন মহান বিজয় দিবস। বাঙালির বিজয়ের সাথে উচ্চারিত হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম। যিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়ে আমাদের একটি স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র উপহার দিয়েছেন। বিজয়ের শপথ হোক সুখী, সমৃদ্ধ, জঙ্গিবাদমুক্ত সোনার বাংলা গঠন।
চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত শত্রুরা শুধু ইতিহাসকে বিকৃত করে নি, ধামাচাপা দিয়ে রাখে; যাতে পরবর্তী প্রজন্ম ইতিহাস ধারণ করতে না পারে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ নতুন প্রজন্ম সঠিক ইতিহাস জানতে পেরেছে।
১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস পালন উপলক্ষে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা সংগঠনের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে সংগঠনের আন্দকিল্লার কার্যালয়ে সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, সহ-সভাপতি মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ দাশ, মোছলেহ উদ্দিন মনসুর, সাবেক এমপি চেমন আরা তৈয়ব, শ্রম সম্পাদক খোরশেদ আলম, আবু জাফর, শিক্ষা সম্পাদক বোরহান উদ্দিন এমরান, স্বাস’্য সম্পাদক ডা. তিমির বরণ চৌধুরী, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক শাহনেওয়াজ হায়দার শাহীন, ধর্ম সম্পাদক আবদুল হান্নান চৌধুরী মঞ্জু, কৃষি সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুর রশিদ, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য দেবব্রত দাশ, চেয়ারম্যান নাছির আহমদ, মোহাম্মদ মুছা, ছিদ্দিক আহমদ বি.কম, দক্ষিণ জেলা যুবলীগ সভাপতি আ ম ম টিপু সুলতান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক পার্থ সারথী চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা কৃষক লীগ সভাপতি আতিকুর রহমান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আতাউল করিম আতিক, আবু সৈয়দ, আবুল বশর ভূইয়া, আবদুর রহমান, দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শামীমা হারুন লুবনা, দিপীকা বড়-য়া, রেহেনা ফেরদৌস, নুরুন্নাহার জালাল, খালেদা আক্তার চৌধুরী, কাজী শারমিন সুমী, কৃষ্ণা দাশ, ববিতা বড়-য়া, অ্যাডভোকেট পাপড়ী সুলতানা, জান্নাতুল ফেরদৌস নাজনীন, জান্নাতুল ফেরদৌস জান্নাত, তামান্না সুলতানা, দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি এস এম বোরহান উদ্দিন, আবদুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ।
আইইবি
১৯৭১ সালে যে মুক্তির সংগ্রামে বাঙালি জাতি ঐক্যবদ্ধভাবে পাকিস্তানীদের বিরুদ্ধে দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধ করে বিজয় অর্জন করেছিল তার মূল লক্ষ্য অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক সমাজ বিনির্মাণ এবং অর্থনৈতিক বৈষম্য নিরসন।
ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (আইইবি), চট্টগ্রাম কেন্দ্র আয়োজিত মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও স্মৃতিচারণমূলক অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত বীর মুক্তিযোদ্ধারা উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
কেন্দ্রের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী সাদেক মোহাম্মদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং কেন্দ্রের সম্মানী সম্পাদক প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেনের সঞ্চালনায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন শহীদ জায়া বেগম মুশতারী শফী এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা বালাগাত উল্লাহ।
সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে শহীদ জায়া বেগম মুশতারী শফী বলেন, অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক সমাজ বিনির্মাণে আমাদের আরো অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। তিনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং মুক্তিযুদ্ধের পূর্বাপর সঠিক ইতিহাস নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে প্রকৌশলী সমাজসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের কাছে আহ্বান জানান।
আলোচনা সভায় অন্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন ভাইস-চেয়ারম্যান প্রকৌশলী এম.এ রশীদ, প্রকৌশলী উদয় শেখর দত্ত, কেন্দ্রের প্রাক্তন চেয়ারম্যান এম. শাহজাহান, প্রকৌশলী মো. দেলোয়ার হোসেন, পিইঞ্জ., প্রকৌশলী মোহাম্মদ হারুন, কাউন্সিল সদস্য প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক।
আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বেতার চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সাবেক মূখ্য উপস’াপক এবং আইইবি, চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সাবেক সম্মানী সম্পাদক শহীদ প্রকৌশলী নুর হোসেন এর বড় ভাই ফজল হোসেন।
সংবর্ধিত মুক্তিযোদ্ধাদের শুভেচ্ছার নিদর্শন স্বরূপ কেন্দ্রের পক্ষ থেকে উপহার এবং উত্তরীয় পরিয়ে দেন কেন্দ্রের চেয়ারম্যান ও নির্বাহীবৃন্দ।
মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে সকালে কেন্দ্রের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী সাদেক মোহাম্মদ চৌধুরী, ভাইস-চেয়ারম্যান প্রকৌশলী এম.এ রশীদ, ভাইস-চেয়ারম্যান প্রকৌশলী উদয় শেখর দত্ত ও সম্মানী সম্পাদক প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন কেন্দ্রের কাউন্সিল সদস্য ও উপসি’ত সদস্যদের সাথে নিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচির সূচনা করেন।
সকাল সাড়ে নয়টায় প্রকৌশলী সদস্যদের সন্তানদের অংশগ্রহণে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন কেন্দ্রের চেয়ারম্যান।
বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও স্মৃতিচারণমূলক আলোচনা সভা শেষে প্রকৌশলী পরিবারের শিল্পীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সবশেষে প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
আইআইইউসি
বর্ণাঢ্য আয়োজনে বিজয় দিবস উদযাপন করলো আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (আইআইইউসি)। জাতীয় পতাকা উত্তোলন, র্যালি, আলোচনা সভা, প্রীতি ফুটবল ম্যাচ, পুরস্কার বিতরণ, সাংস্কৃতিক পরিবেশনা ইত্যাদি আয়োজন নিয়ে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার মাধ্যমে বিজয় দিবস উদযাপিত হয়।
অনুষ্ঠানমালায় ছিল সকাল সাড়ে ৯টায় কুমিরায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ক্যাম্পাসে বিজয়-শোভাযাত্রা, সকাল সাড়ে দশটায় আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ।
এতে প্রধান অতিথি ছিলেন আইআইইউসি’র ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর কে. এম গোলাম মহিউদ্দীন।
ভারপ্রাপ্ত প্রো ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. দেলাওয়ার হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন আইআইইউসি’র বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মনিরুল ইসলাম, আইআইইউসি’র রেজিস্ট্রার কর্নেল (অব.) মোহাম্মদ কাসেম পিএসসি, প্রক্টর ড. কাওসার আহমেদ, হযরত ওমর (রাঃ) হলের প্রভোস্ট সিরাজুল ইসলাম।
এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন স্টুডেন্ট এফেয়ার্স ডিভিশনের পরিচালক আ.জ.ম. ওবায়েদুল্লহ।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় আইআইইউসি’র ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর কে. এম গোলাম মহিউদ্দীন বলেন, মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস জানতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপট নিয়ে কেউ কেউ বিভ্রান্তি ছড়ায়। গণতন্ত্র ও শোষণমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল।
১৬ ডিসেম্বর দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালায় ছিল সকাল ৭টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল সাড়ে ৯টায় কুমিরায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ক্যাম্পাসে বিজয়-শোভাযাত্রা, সকাল সাড়ে দশটায় আলোচনা সভা, প্রীতি ফুটবল ও ভলিবল ম্যাচ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং পুরস্কার বিতরণ।
অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন স্ট্যাড এর অতিরিক্ত পরিচালক মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ ও কবি চৌধুরী গোলাম মাওলা।
ইডিইউ
ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটিতে (ইডিইউতে) উদ্যাপিত হয়েছে মহান বিজয় দিবস।
১৬ই ডিসেম্বর সকালে নগরীর খুলশীর পূর্ব নাসিরাবাদের নোমান সোসাইটির ইডিইউর স’ায়ী ক্যাম্পাসে কালচারাল ক্লাব এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর মুহাম্মদ সিকান্দার খান সবাইকে দেশের ও জনগণের কল্যাণে এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান।
বিশিষ্ট চিকিৎসক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. আবু জাফর চৌধুরী বলেন, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন কে চিকিৎসক, কে আইনজীবী তা ভুলে গিয়ে সবাই অস্ত্র হাতে তুলে নিয়েছিলাম। এই দেশটাকে স্বাধীন করে তোমাদের হাতে তুলে দিয়ে গেলাম। তোমরাই পারবে সব ধরনের অধীনতা থেকে মুক্তি, সমাজে গণতন্ত্র, ন্যায় ও সমতা প্রতিষ্ঠা করতে।
ইডিইউর কালচারাল ক্লাবের উপদেষ্টা লেকচারার সাবরিন সারোয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন ট্রেজারার প্রফেসর সামস উদ দোহা, অ্যাসোসিয়েট ডিন ড. মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন, অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর মোহাম্মদ রকিবুল কবীর, সাফা ইকবাল, ফাহিম হোসেন চৌধুরী প্রমুখ।
দুই ভাগে বিভক্ত অনুষ্ঠানসূচির শুরুতেই ছিল জাতীয় সংগীত পরিবেশন, আলোচনা সভা ও স্মৃতিচারণ।
পরে ছাত্র-ছাত্রীদের পরিবেশনায় ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও লোকগীতি।
সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের বিভিন্ন পর্বে অংশগ্রহণ করেন নিশাত, আন্নি, নাঈম, মুমু, রক্তিম, অনিক, অভি, পিয়াল, রবিন, কাউসার, শান্তা, সায়মা, সাগুফা প্রমুখ।
উত্তর জেলা কৃষক লীগ
মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা কৃষক লীগ সভাপতি নজরুল ইসলাম চৌধুরীর নেতৃত্বে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।
এতে আরো উপসি’ত ছিলেন দপ্তর সম্পাদক সেলিম সাজ্জাদ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এম.এন কাশেম, কার্যকরী পরিষদের সদস্য ইউনুস তালুকদার, জাকির হোসেন, মো. জসিম প্রমূখ।
মহানগর যুবদল
মহানগর যুবদলের সভাপতি কাজী বেলাল উদ্দীন এবং সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন দীপ্তির নেতৃত্বে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে নগরীর কাজীর দেউরিতে ১৬ ডিসেম্বর সকাল ১০ টায় আনন্দ র্যালি অনুষ্ঠিত হয়।
র্যালিতে উপসি’ত ছিলেন মহানগর যুবদলের সহ-সভাপতি শাহজাহান কবির শাহীন, নুর আহমেদ্দ গুড্ডু, যুবদল নেতা আজমল হুদা রিংকু, একে এম ফজলুল হক সুমন, নুর হোসেন নুরু, মিঞা হারুন খান, ম হামিদ, হেলাল হোসেন, শাহজালাল পলাশ, মাহবুবুর রহমান, হুমায়ুন কবির, মাইনুদ্দিন চৌধুরী পারভেজ মো. আরিফ হোসেন, আহাদ আলী সায়েম মো. হাসান, মো. রাশেদ, মনোয়ার হোসেন মানিক, গিয়াসউদ্দীন টুনু, সাইফুল আলম,নিজাম উদ্দীন, মো. সরওয়ার, শওকত খান রাজু, শহিদুল্লাহ শহীদ, মামুন মিয়া, সালাউদ্দীন বাসু, মো. তোহিদ, মো. মানিক, সাঈদ খান, জহিরুল ইসলাম, মো. জামাল, মো. হাবিব, করিম প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।
বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ
মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ চট্টগ্রাম বিভাগের পক্ষ থেকে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।
এ সময় উপসি’ত ছিলেন বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্যকরী সংসদের সিনিয়র সদস্য মো. হারুনুর রশিদ, ডা. শেখ শফিউল আজম, নারী নেত্রী নুরসাত সুলতানা, ইসহাক মিয়া, মো. শরীফুল ইসলাম খন্দকারসহ চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর দক্ষিণ নেতৃবৃন্দ।