মর্মানিত্মক!

ছেলেকে স্কুলে দিয়ে ফেরার পথে পাগলা মহিষের আক্রমণে প্রাণ গেল যুবকের

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রতিদিনের মতো ছেলেকে স্কুলে দিয়ে বাসায় ফিরছিলেন মুজিবুল হাসান (৪০)। কিন’ পথেই দৈত্যের মতো হঠাৎ তেড়ে আসা পাগলা এক মহিষ তার পেটের নাড়ি-ভুঁড়ি এফোর-ওফোর করে দিল। মুহূর্তেই মাটিতে লুটিয়ে পড়লেন টগবগে যুবকটি। গুরম্নতর আহত অবস’ায় উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গেলে চিকিসৎক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মর্মানিত্মক এ ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার সকাল আটটায় নগরের বাকলিয়া রাসূলবাগ আবাসিক এলাকার খালপাড়ে। এ ঘটনায় এক নারীসহ আহত হয়েছে আরও দুইজন। তারা হলেন-সফুরা বেগম ও হাবীবুর রহমান। আহত দুইজন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। নিহত মজিবুল হাসান রাসূলবাগ আবাসিক এলাকার সি বস্নকে থাকতেন। তার গ্রামের বাড়ি পটিয়া উপজেলার সৈয়দপাড়ায়। বাবার নাম সামশুল হুদা।
রাকিবুল হাসান নামে ঘটনার এক প্রত্যদর্শী জানান,
পাগলা মহিষটি হঠাৎ আক্রমণ করলে নিজেকে রড়্গার সময় পাননি মুজিবুল। মহিষের শিংয়ের আঘাতে তার পেটের নাড়ি-ভুঁড়ি বেরিয়ে যায়। প্রচুর রক্তড়্গরণ হয়। এসময় মুজিবুল বাঁচার অনেক আকুতি করেছিলেন। কিন’ হাসপাতালে নেওয়ার পথে প্রাণ চলে গেল তার।
মৃত্যুর খবর এলাকায় পৌঁছলে সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে আসে। সকাল দশটার দিকে তার স্ত্রী ও স্বজন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মুজিবুলের মরদেহ দেখে আহাজারি করতে থাকেন। ছেলেকে স্কুলে দিয়ে বাসায় ফেরার পথে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানান চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন।
স’ানীয়দের অভিযোগ, প্রতিবছর পবিত্র রমজান, শবেবরাত ও ঈদ উৎসবের এক দুইদিন আগে স’ানীয় বাবুল কোম্পানি, মো. রম্নবেল, মো. বাবু, মো. সোহেল ও মানিকসহ কয়েকজন খালপাড় এলাকায় সংরড়্গিত মহিলা ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফারজানা ইয়াসমিনের বাসার পাশে গরম্ন ও মহিষ জবাই করেন। এতে পরিবেশ দূষণসহ নানান সমস্যা সৃষ্টি হওয়ায় মহলস্না কমিটি আপত্তিও দেয়। কিন’ তারা কোনো কথা আমলে নিচ্ছেন না। মহিলা কাউন্সিলরও তাদের বাধা দেন না। এ বিষয়ে বক্তব্য নিতে গতকাল সন্ধ্যার পর থেকে রাত দশটা পর্যনত্ম কাউন্সিলর ফারজানার মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।
বাকলিয়া থানার এসআই বেলাল জানান, রাসূলবাগ আবাসিক এলাকায় প্রতিবছর রমজান ও শবে বরাতের দিনকে সামনে রেখে স’ানীয়রা গরম্ন কিংবা মহিষ জবাই করেন। মঙ্গলবার সকাল আটটার দিকে একটি মহিষ পাগলা হয়ে উঠে। এক পর্যায়ে দড়ি ছিড়ে দিগ্বিদিক ছুটতে থাকে মহিষটি। এসময় সনত্মানকে স্কুলে দিয়ে বাসায় ফেরার পথে ওই মহিষের আক্রমণের শিকার হন মজিবুল হকসহ তিনজন। মহিষের শিংয়ের গুঁতোয় মুজিবুলের নাড়িভুঁড়ি বেরিয়ে যায়। গুরম্নতর আহত অবস’ায় মুজিবুলকে চমেক হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এক নারীসহ অন্য দুইজন চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনাটির তদনত্ম চলছে বলেও জানান এসআই বেলাল।