ভ্রমণবিলাসীদের ডাকছে পর্যটননগরী টেকনাফ

জিয়াবুল হক, টেকনাফ

দেশি-বিদেশি পর্যটকদেরকে হাতছানি দিয়ে ঢাকছে সৌন্দর্যের লীলাভুমি পর্যটননগরী টেকনাফ। বাংলাদেশের সর্বদক্ষিণে অবসি’ত অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ঘেরা টেকনাফ উপজেলায় রয়েছে ভ্রমণপিপাসু পর্যটকদের জন্য হরেক রকমের বিনোদন সপট। উপজেলার চারিদিক সৌন্দর্যের অপরূপ সৃষ্টিতে ঘেরা। এখানে রয়েছে বেশ কয়েকটি আকর্ষণীয় পর্যটনসপট।
পর্যটকদের আকৃষ্ট করার মত বেশ কয়েকটি বিনোদনের স’ান এখানকার বৈশিষ্ট্য। যেমন, প্রবাল দ্বীপ সেন্টমাটিন, ছেরাদ্বীপ, জল্যারদ্বীপ, নেচার পার্ক, কুদুমগুহা, বাহারছড়া গর্জন বাগান, খুরের মুখ এক্সক্লুসিভ ট্যুরিস্টজোন, অমর প্রেমের স্মৃতি বিজড়িত ঐতিহাসিক মাথিন কূপ। তার পাশাপাশি কক্সবাজার জেলার দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতটি এই উপজেলায়। প্রায় ৭০ কিলোমিটার জুড়ে টেকনাফ সমুদ্র সৈকত। বলতে গেলে, এত বড় সমুদ্র সৈকত পৃথিবীর কোথাও নেই। বর্তমানে এই সৈকতের উপকূল দিয়ে তৈরি হচ্ছে কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে মেরিন ড্রাইভ সড়ক, এই সড়কের শেষ মাথায় হাজার কোটি ব্যয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ পর্যটনসপট এক্সক্লুসিভ ট্যুরিস্ট জোন। এর মধ্যে টেকনাফ পৌরসভার চৌধুরী পাড়া এলাকায় নাফনদীর ওপর শত কোটি টাকা ব্যয়ে তৈরি হয়েছে বিশাল বিনোদনমূলক জেটি। বর্তমানে এই জেটিটি দেখার জন্য প্রতিনিয়ত দেশি-বিদেশি ও স’ানীয় জনসাধারণসহ শত শত মানুষের আগমন ঘটছে। উপজেলার পশ্চিম দিকে রয়েছে বিশাল বঙ্গোপসাগর উপকূল, আর পুবদিকে রয়েছে অপূর্ব দৃশ্যে ঘেরা বিশাল অপরূপ নাফনদী। এই নদীর প্রায় ৫০ কিলোমিটার সীমান্ত জুড়ে রয়েছে পার্শ্ববর্তী দেশ মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য। প্রতিদিন এই নাফনদীর ঢেউয়ের তালে তালে সূর্যোদয়ের মনোরম দৃশ্য উপলব্ধি করা যায়। পাশাপাশি বিকাল বেলা বঙ্গোপসাগরের গভীর পানিতে সূর্যাস্তের ডুবে যাওয়া মনোরম দৃশ্য চোখে পড়ে। একবার দেখলে যা বারবার দেখতে ইচ্ছে করে। পৗরশহরের মডেল থানা প্রাঙ্গণে অবসি’ত অমর প্রেমের চির সাক্ষি ঐতিহাসিক মাথিনের কূপ। বিংশ শতাব্দিতে ঘটে যাওয়া এক পুলিশ কর্মকর্তা ও এক ১২ বছর বয়সী আদিবাসী মেয়ের করুণ কাহিনীর প্রেমের ইতিহাস এটি। যে মাথিন নিজের জীবন বিসর্জন দিয়ে রচনা করে গেছেন অমর প্রেমের স্মৃতিকাব্য। প্রতি বছর শত শত পর্যটক ও স্কুলপড়-য়া যুবক-যুবতীর পদভারে মুখরিত হয় এই ঐতিহাসিক মাথিনের কূপ এলাকাটি। পর্যটকদের েআকৃষ্ট করার মত অন্যতম দর্শনীয় স’ান টেকনাফ ন্যাচার পার্ক। তার পাশাপাশি বাহারছড়া ইউনিয়নে রয়েছে দেশের সর্ববৃহৎ এক গর্জন গাছের বাগান। এই বাগানটির একটু ভিতরে গেলেই চোখে পড়বে পাহাড়ি ঝরনার মনোরম দৃশ্য।

আপনার মন্তব্য লিখুন