ভোটের প্রচারে কাপড়ের পোস্টার ও জীবন্ত প্রাণী ব্যবহার মানা

সুপ্রভাত ডেস্ক

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীর প্রচারে জীবন্ত প্রাণী এবং কাপড়ের পোস্টার ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করয় নির্বাচন কমিশন। রোববার কমিশনের ৩৭তম সভায় রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালায় এ সংক্রান্ত দুটি পরিবর্তন আনা হয়। বৈঠক শেষে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, আচরণবিধির ৯ক ধারায় বলা হয়, প্রতীক হিসেবে জীবন্ত প্রাণী ব্যবহার করা যাবে না।
‘ওয়ার্ল্ড লাইফ রিজার্ভেশন অ্যাক্ট ১৯১২ এবং যারা পরিবেশবাদী তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ও আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে এই নতুন ধারাটি সংযোজন করা হয়।’ পাশাপাশি পোস্টারের সংজ্ঞায় সংশোধন আনা হয় জানিয়ে তিনি বলেন, সংজ্ঞায় ছিল-কাগজ, কাপড়, রেক্সিন ডিজিটাল ডিসপ্লে বা ইলেকট্রনিক মাধ্যমসহ অন্য যে কোনো মাধ্যমে প্রস’তকৃত কোনো প্রচারপত্র, প্রচারচিত্র, বিজ্ঞাপনচিত্র, বিজ্ঞাপনপত্র এর অন্তর্ভুক্ত হবে। সেখান থেকে ‘কাপড়’ শব্দটি বাদ দেওয়া হয়।
‘ডিজিটাল প্রচারে বাধা নেই। তবে প্রতীক হিসেবে জীবন্ত প্রাণী ব্যবহার করা যাবে না এবং কাপড় দিয়ে পোস্টার করা যাবে না। এই দুটি বিষয় নির্বাচন আচরণ বিধিমালায় সংযোজন করা হয়।’ এর ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, ‘হাতি প্রতীকের প্রচারে জীবন্ত হাতি নিতে না পারলেও প্রতিকৃতি ব্যবহার করা যাবে।’
আচরণবিধির ৭ ধারায় ‘পোস্টার, লিফলেট বা হ্যান্ডবিল ব্যবহার’ এর বিধি-নিষেধ স্পষ্ট করা হয়। নির্বাচনী ব্যয় সীমার মধ্যে এ বিধান মেনেই প্রার্থীদের প্রচার সামগ্রী তৈরি ও ব্যবহার করতে হয়।
সাংসদ, মন্ত্রীসহ সরকারি সুবিধাভোগী ব্যক্তিরা বিদ্যমান আচরণবিধি অনুযায়ী প্রচারে অংশ নিতে পারবেন জানিয় ইসি সচিব বলেন, ‘তাদের জন্য নতুন করে কোনো নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হচ্ছে না।’ সিইসি কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে তিন নির্বাচন কমিশনার এবং কমিশন সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এ সভায় উপসি’ত ছিলেন। যুক্তরাষ্ট্র সফরে থাকায় নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার সভায় উপসি’ত ছিলেন না।