ভেজাল মশার কয়েল কিনলে সরিষার তেল ফ্রি

নিজস্ব প্রতিবেদক

নগরীর ইপিজেড এলাকায় মশার কিনলে সরিষার তেল ফ্রি দিচ্ছে এমন প্রতিষ্ঠানের খোঁজ পেয়েছে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল মঙ্গলবার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত ইপিজেড থানার নিউমুরিং এলাকার সোহেল এন্টারপ্রাইজে অভিযান চালিয়ে এমন তথ্য পায়।
সোহেল এন্টারপ্রাইজের মালিক ইসমাইল হোসেন দড়্গিণ হালিশহরের আলী মাঝিরপাড়ার বাসিন্দা মৃত মো. আলীর ছেলে।
এ ব্যাপারে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলাম সুপ্রভাতকে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ইপিজেড নিউমুরিং বড়মিয়া বিল্ডিং এর নিচতলায় সোহেল এন্টারপ্রাইজ নামের একটি প্রতিষ্ঠানের অভিযানে চালানো হয়। সেখানে অনুমোদনহীন গড়ে উঠা ভেজাল সরিষার তেল তৈরির কারখানার সন্ধান পাওয়া যায়। পরে সেখান থেকে ‘হাদী খাটি সরিষার তেল’ নামে ৮ ড্রাম ভেজাল সরিষার তেল জব্দ করা হয়। এছাড়াও এক লিটার পরিমাপের ৫০টি ও ৫শ গ্রাম পরিমাপের প্রায় দুইশ
খালি বোতল উদ্ধার করা হয়।
নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম বলেন, এরপর পাশের বিল্ডিংয়ের একটি গুদামে নকল মশার কয়েলের সন্ধান পাওয়া যায়। সেটিও সোহেল এন্ট্রাপ্রাইজের মালিকানাধীন। এসময় গুদাম থেকে ৩০ কাটন মশার কয়েল জব্দ করা হয়। কাটনগুলোর গায়ে ‘এক কাটন মশার কয়েল ক্রয় করিলে পাঁচশ গ্রাম খাটি হাদী সরিষার তেল ফ্রি’ এমন হলোগ্রাম দেখা যায়।
তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠানটির মালিকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি আসতে দেরি হবে বলে জানান। পরে আমরা জব্দকৃত জিনিস ইপিজেড থানায় প্রেরণ করি এবং থানায় নিয়মিত মামলা করতে বলি।
এছাড়াও ভ্রাম্যমাণ আদালত ইপিজেড নিউমুরিং কাঁচাবাজারে বিএসটিআই অনুমোদহীন পরিমাপ যন্ত্র ব্যবহার করায় একজন সবজির দোকানিকে এক হাজার টাকা জরিমানা করে বলেও জানান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম।
একই দিন কাজির দেউড়ি বাজারে জেলা প্রশাসন ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে ছয় প্রতিষ্ঠানকে সাত হাজার টাকা জরিমান করে।
ভ্রাম্যমাণ আদালতে দায়িত্বে থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহফুজা জেরিন সুপ্রভাতকে বলেন, কাজির দেউড়ি কাঁচাবাজারে মূল্য তালিকা না থাকায় এক মোদির দোকানিকে দুই হাজার ও পাঁচ মাংস ব্যবসায়ীকে এক হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।