বোলারের মাথায় হেলমেট!

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক

ছোট ছোট পায়ে এগিয়ে এসে গতি বাড়িয়ে বল ছুড়লেন- বোলার হিসেবে সব ঠিকই আছে, কিন’ খানিক সময়ের জন্য ধন্দে পড়ে যেতে হলো মাথায় হেলমেট দেখে। বোলারের মাথায় হেলমেট? সত্যি তাই, নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া ওয়ানডে প্রতিযোগিতা ফোর্ড ট্রফিতে দৃশ্যটা দেখা গেছে অ্যান্ড্রু এলিসের সৌজন্যে। খবর বাংলাট্রিবিউন’র।

গতকাল ক্রাইস্টচার্চের হেগলি ওভালে ক্যান্টারবেরি ও নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টের ম্যাচে হেলমেট মাথায় দিয়ে বল করেছেন এলিস। গত মৌসুমের দুঃসহ স্মৃতি তাকে কতটা তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে, সেটারই প্রমাণ মিলেছে হেলমেট মাথায় পরে বোলিংয়ের ঘটনায়। এই ফোর্ড ট্রফিতেই গত বছর জিৎ রাভালের মুখোমুখি হয়ে বড় বাঁচা বেঁচেছিলেন এলিস। রাভালের সজোরে মারা বল এই পেসারের মাথায় লেগে উড়ে সীমানা পেরিয়ে যায়! ক্রিকেট ইতিহাস প্রথম সাড়্গী হয় এই ধরনের ছক্কার। মাথার পরীড়্গা-নিরীড়্গায় ‘ইতিবাচক’ ফল মিললেও বিষয়টি ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রণ কর্তাদের দৃষ্টিগোচর করেছিলেন এলিস।

বোলারদের সুরড়্গায় আরও মনোযোগী হওয়ার আহ্বান ছিল নিউজিল্যান্ডের জার্সিতে ১৫ ওয়ানডে ও ৫ টি-টোয়েন্টি খেলা ৩৭ বছর বয়সী অলরাউন্ডারের। অবশ্য ক্রিকেট অভিভাবকদের অপেড়্গায় থাকেননি এলিস, নতুন মৌসুমের শুরম্নতেই নিজের সুরড়্গায় বেসবল হেলমেট পরে বল করেছেন। হেলমেট মাথায় বোলিং করে এই পেসার ৮ ওভারে ৩৮ রান দিয়ে পেয়েছেন ১ উইকেট। ক্রিকেটে হেলমেট মাথায় বোলিং করার ঘটনা অবশ্য এবারই প্রথম নয়। ক্রিকেট বিশ্ব প্রথমবার বোলারের মাথায় হেলমেট দেখেছিল ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে। এলিসের আগে নিজের সুরড়্গায় হেটমেট পরেছিলেন ওটাগো পেসার ওয়ারেন বার্নেস। টি-টোয়েন্টি যুগে বলে আঘাত করা হয়ে উঠেছে ব্যাটসম্যানদের মূল লড়্গ্য। টেস্ট ক্রিকেটেও মারমুখী ব্যাটিং দেখা যায় প্রায়ই। ব্যাটসম্যানদের তা-ব থেকে ‘রড়্গা’ পেতে আম্পায়ারের মাথাও দেখা যায় হেলমেট। অস্ট্রেলিয়ান আম্পায়ার জেরার্ড অ্যাবুড প্রথম আম্পায়ার হিসেবে হেলমেট পরে ম্যাচ পরিচালনা করেছেন বিগ ব্যাশে। হেলমেট ছাড়াও ‘অভিনব হাতিয়ার’ নিয়ে আম্পায়ারিং করতে দেখা গেছে আরেক অস্ট্রেলিয়ান ব্রম্নস অক্সেনফোর্ডকে। বাঁ হাতে এক ধরনের শিল্ড ব্যবহার করেন তিনি।

২০১৪ সালে অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান ফিল হিউজের মৃত্যুর পর কেঁপে ওঠে ক্রিকেট বিশ্ব। অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া ক্রিকেটে মাথায় বলের আঘাতে মৃত্যু হয়েছিল হিউজের। এ বছরের অ্যাশেজে মাথায় আঘাত পেয়ে ম্যাচ থেকে সরে যেতে হয়েছিল স্টিভেন স্মিথকে।  বর্তমান ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানদের সঙ্গে বোলার ও আম্পায়ারের সুরড়্গাও বড় একটি বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

একটা সময় ব্যাটসম্যানরাও মাথায় হেলমেট নিতেন না। ’৭০-এর দশকের শেষ দিকে নিরাপত্তার বিষয়টি প্রথম মাথায় আসে অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান গ্রাহাম ইয়ালপের। ১৯৭৮ সালের ১৭ মার্চ তার সৌজন্যে প্রথমবার আনত্মর্জাতিক ক্রিকেট দেখে হেলমেটের ব্যবহার। ব্যাটসম্যান, আম্পায়ার হয়ে এখন বোলারের মাথাতেও দেখা যাচ্ছে হেলমেট।