বোরো রোপণের ধুম

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাউজান

রাউজান উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকার বিভিন্ন স’ানে ফসলি জমিতে বোরো ধানের চাষাবাদ করছে কৃষকেরা। চারা রোপন করার কাজে ব্যস্ত সময় অতিবাহিত করছে তারা। সারা দিন এলাকার কৃষকেরা ফসলী ধানের চারা বীজতলা থেকে তুলে রোপন করছেন জমিতে। এলাকার কৃষকেরা বোরো ধানের চারা রোপন করার জন্য দৈনিক ৫শ টাকা বেতন দিয়ে চাষাবাদের কাজ করাচ্ছেন। সরেজমিনে পরিদর্শনে জানা যায় রাউজানের হলদিয়া ইউনিয়নের বৃন্দাবনপুর, বুকবানপুর, গলাচিপা, পাচঁ পুকুরিয়া, জানিপাথর, গর্জনিয়া, হলদিয়া, এয়াসিন নগর, বানারস, রাধামাধবপুর, ডাবুয়া ইউনিয়নের পশ্চিম ডাবুয়া, লাঠিছড়ি, পুর্ব ডাবুয়া, কেউকদাইর, রামনাথ পাড়া, সুড়ঙ্গা, হিংগলা, কলমপতি, দক্ষিণ হিংগলা, চিকদাইর ইউনয়নের পাঠান পাড়া, দক্ষিণ সর্তা, গহিরা ইউনিয়নের দলই নগর, কোতোয়ালী ঘোনা, নোয়াজিশপুর ইউনিয়নের নদিমপুর,ফতেহ নগর, বিনাজুরী ইউনিয়নের লেলাঙ্গারা, ইদিলপুর, পশ্চিম বিনাজুরী, জাম্মইন, রাউজান ইউনিয়নের পুর্ব রাউজান, রাণী পাড়া, শমশের নগর, কেউটিয়া, পশ্চিম রাউজান, মঙ্গলখালী, খলিলাবাদ, মোহাম্মদপুর, কদলপুর ইউনিয়নের শমশের পাড়া, ভোমরপাড়া, পশ্চিম কদলপুর, পুর্ব গুজরা ইউনিয়নের আধার মানিক, হোয়ারা পাড়া, বড়ঠাকুর পাড়া, উত্তর গুজরা, পশ্চিম গুজরা ইউনিয়নের কাগতিয়া, মগদাই, ডোমখালী, বদুমুন্সিপাড়া, মিরধার পাড়া, উরকির চর ইউনিয়নের মীরা পাড়া, আবুর খীল খলিফার ঘোনা, মইমকরম, নোয়াপাড়া ইউনিয়নের পটিয়া পাড়া, সামমাহলদার পাড়া, গুহ পাড়া, উভলং, পালোয়ান পাড়া, বাগোয়ান ইউনিয়নের পাচঁখাইন, কোয়েপাড়া, গশ্চি, পাহাড়তলী ইউনিয়নের মহামুনি, বদুপাড়া, খৈয়াখালী, উনসত্তর পাড়া, দেওয়ার পুর, বহলপুর, রাউজান পৌরসভার আইলী খীল, ওয়াহেদের খীল, ঢালারমুখ, পুর্ব রাউজান, পশ্চিম রাউজান, ঢেউয়া পাড়া, হাজী পাড়া, সাপলঙ্গা, গনি হাজী পাড়া, দলিলাবাদ, ছত্র পাড়া, ছিটিয়া পাড়া, সুলতান পুর কাজী পাড়া, পশ্চিম সুলতানপুর, পুর্ব গহিরা, মেবারক খীল, দক্ষিন গহিরা, পশ্চিম গহিরা এলাকার ফসলী জমিতে সেচের পানি দিয়ে এলাকার কৃষকেরা বোরো ধানের চাষাবাদ করছে। এই সব এলাকায় ফসলী জমিতে বোরো ধানের চারা রোপন করছে এলাকার কৃষকেরা। রাউজান উপজেলা প্রশাসন ফসলী জমিতে চাষাবাদ না করে জমি অনাবাদি রাখা হলে ঐ জমি সরকারী ভাবে খাসঁ করার ঘোষনা দেওয়ায় গত বৎসরের তুলনায় এব বৎসর শুস্ক মৌসুমে বোরো ধানের চাষাবাদ বেড়েছে বলে জানায় রাউজান উপজেলা কৃষি অফিসার বেলায়েত হোসেন।
রাউজান উপজেলা কৃষি অফিসার বেলায়েত হোসেন বলেন, বোরো ধানের চাষাবাদের জন্য প্রতিটি এলাকায় জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে কৃষক ও সেচ প্রকল্পের ম্যানেজার কে ডেকে উদ্বৃদ্বকরন সভা করে এলাকার কৃষকেদের বোরো ধানের চাষাবাদের জন্য উদ্বৃদ্ব করা হয়েছে। রাউজান উপজেলা কৃষি অফিসার বেলায়েত হোসেন জানান রাউজানের ১৪টি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকায় এ বৎসর শুষ্ক মৌসুমে ১শ ২০ হেক্টর জমিতে হাইব্রিড জাতের ও ৪ হাজার ৫শ ২৫ হেক্টর জমিতে উচ্চ ফলনশীল জাতের বোরো ধানের চাষাবাদ সহ মোট ৪ হাজার ৬শত ৪৫ হেক্টর জমিতে চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। এপর্যন্ত ১ হাজার ৬শ ৭০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের চারা রোপন করা হয়েছে। অবশিষ্ট জমিতে বোরো ধানের চারা রোপন চলমান রয়েছে। রাউজানে বোরো ধানের চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা পুরণ হলে এই বৎসর রাউজানে বোরো ধানের চাষাবাদ থেকে ১৮ হাজার ৫শ ৮০ মেট্রিক টন চাউল উৎপাদন হবে বলে আশা করছেন উপজেলা কৃষি অফিসার বেলায়েত হোসেন। রাউজানে ডিজেল চালিত সেচ পাম্প ৮শ ৬০টি বিদ্যুৎ চালিত সেচ পাম্প ৭৭টি সহ ৯শ ৬০ সেচ পাম্পের মাধ্যমে বোরো ধারে চাষাবাদে সেচ প্রদান করা হচ্ছে। এছাড়া গভীর নলকুপ, ঝর্ণা, টিউবওয়েল ছোট ছোট সেচ পাম্প চালু রয়েছে ১শ ৬০ টি।
তা ছাড়া রাউজানের উঁচু এলাকায় খালের মধ্যে বাঁধ দিয়ে উজান থেকে নেমে আসা খালের পানি আটকে সেচের মাধ্যমে বোরো ধানের চাষাবাদ করছে। রাউজানের হলদিয়া ইউনিয়নের এয়াসিন নগর এলাকার কৃষক জামাল পাশা জানান, তিনি বৃকবানুপুর এলাকায় ৮০ শতক ফসলি জমিতে বোরো ধানের চাষাবাদ করেছেন। ৮০ শতক জমিতে বোরো ধানের চাষাবাদের জমিতে চারা রোপন করা পর্যন্ত তার খরচ হয়েছে ২০ হাজার টাকা। কৃষক জামাল পাশা বলেন, বৃকবানপুর এলাকায় বিদ্যুৎ চালিত সেচ প্রকল্পের পানি সেচ বাবদ ৮০ শতক জমি থেকে ৪ হাজার টাকা নিয়েছেন সেচ প্রকল্পের ম্যানেজার জসিম উদ্দিন।