বোনের সাথে বোনের প্রতারণা!

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিজেকে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী পরিচয় দিয়ে প্রতারণা ও নিজ বোনের সম্পত্তি আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে সাজেদা বেগম ডলি নামের চট্টগ্রাম আইন কলেজের এক ছাত্রীর বিরুদ্ধে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এমন অভিযোগ করেন তার আপন বড়বোন ইয়াছমিন আক্তার।
লিখিত বক্তব্যে ইয়াছমিন আক্তার বলেন, ‘আশা ছিল ছোটবোন সাজেদা বেগম ডলি আইনজীবী হয়ে মানুষের উপকার করবে। কিন’ উল্টো প্রতারণার মাধ্যমে সে আমাদের সম্পত্তি আত্মসাৎ করে। ওকালতি পাশ না করেও এলাকাবাসীর কাছে সে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী পরিচয় দিয়ে অনেকের সাথে প্রতারণা করে আসছে।’
তিনি আরও বলেন, ছোট বেলা থেকেই ডলি একটু উচ্ছৃঙ্খল প্রকৃতির ছিলো। একাধিকবার সে অনৈতিক কার্যকলাপে যুক্ত থাকার কারণে পুলিশের হাতেও গ্রেফতার হয়।
সংবাদ সম্মেলনে ইয়াসমিন আক্তার বলেন, ‘আনোয়ারা ছত্তারহাট এলাকার মৃত আবুল কাশেম সওদাগর ও মৃত ছেনোয়ারা বেগমের ছোটকন্যা সাজেদা বেগম ডলি চট্টগ্রাম শহরের ২৬২ কেবি আবদুস সাত্তার রোড এলাকায় বসবাসকালে অসামাজিক কার্য-কলাপে অভিযুক্ত হয়ে কাপ্তাই রোডের ধুপপুল এলাকার ভাড়াঘরে বসবাস শুরু করে। সেই বাসায়ও অনেক লোকের রহস্যময় আনাগোনায় এলাকার মানুষের মনে প্রশ্নের সৃষ্টি হয়। এমনকি সে নিজেকে চট্টগ্রাম আইন কলেজ ছাত্র সংসদের নেত্রী পরিচয় দিয়ে ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগ ও মেয়রের নাম ভাঙ্গিয়ে ওই এলাকার অনেকজনকে এবং নিজ পরিবারের সদস্যদেরকেও ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, ডলি ও শামীম মিলে আমাদের সম্পত্তি আত্নসাতের লক্ষে বিভিন্ন ধরনের টালবাহানা শুরু করেছে। ইতিমধ্যে রহমতগঞ্জের কেবি আবদুস সত্তার রোডের আমাদের জায়গা একটি ডেভেলপার প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি করে ১৫ লাখ টাকা আত্নসাৎ করেছে। এই টাকা থেকে সে আইন কলেজের এক নেতা ও মেয়রকে টাকা দিয়েছে বলে আমাদের কাছে প্রচার করছে। তার এমন কর্মকাণ্ডে আমরা ভীতির মধ্যে দিনযাপন করছি।’
সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন পারভিন আকতার, রোজি চৌধুরী, মোহাম্মদ কামাল প্রমুখ।