বৃষ্টি-যানজটের সঙ্গে বাড়তি ভাড়া ভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক

টানা বর্ষণে দুর্ভোগে পড়েছেন নগরবাসী। যানজট-জলজটের কারণে গাড়ি কমে যাওয়ায় অতিরিক্ত ভাড়া গুনতে হচ্ছে
যাতায়াতকারীদের। বিশেষ করে অফিসগামী ও ঈদের কেনাকাটা করতে আসা লোকজনকে বেশি ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে।
গতকাল নগরীর প্রধান প্রধান এলাকা ঘুরে দেখা যায়, দিনভর বৃষ্টির কারণে রাস্তায় যানবাহনের সংখ্যা স্বাভাবিকের চেয়ে তুলনামূলক কম ছিল। এ সুযোগে রিকশাচালকেরা অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করায় বাড়তি ভোগান্তির শিকার হতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। সিএনজি অটোরিক্সা চালকরাও লুফে নিয়েছে এ সুযোগ।
অন্যদিকে ভারী বর্ষণের ফলে বেশিরভাগ জায়গায় পানি উঠে যাওয়ায় রাজপথে মানুষের উপসি’তি ছিল তুলনামূলক কম। ফলে ঈদের কেনাকাটায় ভাটা পড়েছে। শপিংমলগুলোতে ব্যবসায়ী-কর্মচারীদের অলস সময় কাটাতে দেখা গেছে। বৃষ্টি সবচেয়ে বেশি ভোগাচ্ছে ফুটপাতের ব্যবসায়ী, বস্তিবাসীসহ ছিন্নমূল মানুষকে।
মুরাদপুর থেকে গতকাল দুপুরে রিক্সাযোগে চকবাজার যান বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাসুদ হাসান। তার কাছ থেকে কয়েকজন রিক্সাচালক ভাড়া দাবি করেন ৮০ টাকা। পরে ৫০ টাকা ভাড়ায় একটি রিক্সাতে চড়ে গন্তব্যে পৌঁছান তিনি।
মাসুদ হাসান সুপ্রভাতকে বলেন, স্বাভাবিক ভাড়া ২০ টাকা। নিয়মিত যাওয়া আসা করি। কাতালগঞ্জ এলাকায় পানি জমে আছে। সেই অজুহাতে রিক্সাচালকেরা বাড়তি ভাড়া আদায় করছে।
জিইসি মোড় থেকে বেসরকারি ব্যাংকের কর্মকর্তা আসাদ অক্সিজেন এলাকায় গেলে সিএনজি অটোরিক্সা চালক তার কাছ থেকে দুইশ টাকা ভাড়া আদায় করেন।
ক্ষোভ প্রকাশ করে আসাদ বলেন, স্বাভাবিক ভাড়া ১০০ থেকে ১২০ টাকা। দূরত্ব ৮ থেকে ১০ কিলোমিটার। পানির উঠার অজুহাজে গলাকাটা ভাড়া দাবি করছে চালকেরা। তারা অতিরিক্ত ভাড়া দিতে মানুষকে বাধ্য করছে।
চট্টগ্রাম শপিং কমপ্লেক্সের ব্যবসায়ী সাহেদুল ইসলাম বলেন, বৃষ্টির কারণে ক্রেতারা একদম আসছেন না। হাতেগোনা কয়েকজন আসলেও কেনার আগ্রহ তেমন দেখাচ্ছেন না। তাই বেচাকেনা খুবই কম হচ্ছে।
এদিকে, টানা বৃষ্টির ফলে ভোগ্যপণ্যের বড় পাইকারি বাজার চাক্তাই ও খাতুনগঞ্জে ক্রেতাদের উপসি’তি কম ছিল। অন্যদিকে সাগর উত্তাল থাকায় বন্দরের বহির্নোঙরে মালামাল উঠানামার কাজ ব্যাহত হয়েছে।
পতেঙ্গা আবহাওয়া দপ্তর সূত্র জানায়, গতকাল মঙ্গলবার সকাল ছয়টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ৯৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। সঞ্চালনশীল মেঘমালা সক্রিয় থাকার প্রভাবে বৃষ্টি হচ্ছে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে।