বিশ্ব যক্ষা দিবস আজ চট্টগ্রামে ১৮ হাজার মানুষ যক্ষ্মায় আক্রান্ত

সালাহ উদ্দিন সায়েম

২০১৭ সালে চট্টগ্রাম জেলায় ১৫ হাজার ৫৩৫ জন মানুষ যক্ষ্মায় আক্রান্ত হন। গত বছর এ সংখ্যা আরও আড়াই হাজার বেড়ে ১৮ হাজার ছাড়িয়েছে। জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির প্রকল্প ‘ন্যাশনাল প্রিভালেন্স সার্ভের’ তথ্যে এ চিত্র উঠে এসেছে।
ন্যাশনাল প্রিভালেন্স সার্ভের তথ্যমতে, ২০১৮ সালে চট্টগ্রামে মোট যক্ষ্মা রোগী শনাক্ত হয় ১৮ হাজার ৬৭ জন। প্রতি ১ লাখ জনসংখ্যায় ১০৪ জন শনাক্ত হয়। এরমধ্যে নতুন রোগীর সংখ্যা হলো ১৭ হাজার ১৬২ জন। সুস’ হয়ে পুনরায় এ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ৯০৫ জন। এরমধ্যে ফুসফুস আক্রান্ত যক্ষ্মা রোগীর সংখ্যা হলো ১৩ হাজার ৪৫১ জন। আর ফুসফুস বহির্ভূত যক্ষ্মা রোগীর সংখ্যা হলো ৪ হাজার ৬১৬ জন।
শিশুদের মধ্যেও যক্ষ্মায় আক্রান্তের হার বাড়ছে। গত বছর চট্টগ্রামে ৯৭৫ জন শিশু যক্ষ্মায় আক্রান্ত হয়েছে। ২০১৭ সালে শিশু যক্ষ্মা রোগী শনাক্ত হয়েছে ৮০৫ জন। গত এক বছরে ১৭০ জন শিশু যক্ষ্মা রোগীর সংখ্যা বেড়েছে। আজ বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস। যক্ষ্মা রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকায় এবার দিবসের স্লোগানে রোগটি নিয়ন্ত্রণে মানুষকে সচেতনতার তাগাদা দেওয়া হয়েছে। এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য হলো-‘এখনই সময় অঙ্গীকার করার, যক্ষ্মামুক্ত বাংলাদেশ গড়ার।’
ন্যাশনাল প্রিভালেন্স সার্ভের চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বে থাকা ডা. বিশাখা ঘোষের মতে, ‘যক্ষ্মায় সংক্রমণের হার স্বাভাবিক পর্যায়ে রয়েছে। বরং পারিপার্শ্বিক পরিবেশ বিবেচনায় সংক্রমণের হার আরও বেশি হওয়া উচিত ছিল।’
ডা. বিশাখা ঘোষ চট্টগ্রাম বিভাগের ১১টি জেলার ১০১টি উপজেলায় গত ১০ বছর ধরে যক্ষ্মা রোগের চিকিৎসা দিয়ে আসছেন।
এই ‘টিবি বিশেষজ্ঞ’ সুপ্রভাতকে বলেন, ‘দুই সপ্তাহের বেশি কাশি থাকলেও মানুষ স্বেচ্ছায় কফ পরীক্ষা করান না। টিবি রোগকে মানুষ স্বীকার করে নিতে চান না। অথচ পূর্ণ মেয়াদে চিকিৎসা নিলে যক্ষ্মা রোগ এখন সম্পূর্ণ নিরাময় হয়। কিন’ অনেকে পূর্ণ মেয়াদে চিকিৎসা না নেওয়ায় পুনরায় আবার এ রোগে আক্রান্ত হন। মানুষ এ রোগ সম্পর্কে এখনো সচেতন নন।’
ডা. বিশাখা ঘোষ বলেন, ‘মানুষের দেহে এ রোগ সুপ্ত অবস’ায় আছে, যা সাধারণত সংক্রমণ ঘটায় না। মানুষের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যখন কমে যায় তখনই যক্ষ্মার সংক্রমণ হয়।’

নগরীতে যক্ষ্মা দিবসের কর্মসূচি
বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস উপলক্ষে আজ রোববার সকাল ৯টায় আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালের সামনে থেকে শোভাযাত্রা বের করা হবে। চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস’্য পরিচালকের কার্যালয়, জেলা সিভিল সার্জন ও বেসরকারি সংস’ার যৌথ সমন্বয়ে এ শোভাযাত্রা বের করা হবে। শোভাযাত্রা শেষে নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউটে যক্ষ্মা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।