বিশ্বের সেফটি এয়ারলাইন্স তালিকায় বাংলাদেশ বিমান পাঁচ তারকা অর্জন

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিশ্বের সেফটি এয়ারলাইন্স তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী সংস’া বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। যাত্রীদের নিরাপত্তা দেয়ার দিক থেকে সাত তারকার মধ্যে পাঁচ তারকা অর্জন করেছে বিমান। রোববার এ তালিকা প্রকাশ করেছে অস্ট্রেলিয়া ভিত্তিক এয়ারলাইন্স রেটিংস ডটকম। প্রতিবছর অস্ট্রেলিয়া ভিত্তিক এয়ারলাইন্স রেটিংস ডটকম আকাশপথে কোন বিমান সংস’া নির্ভরযোগ্য ও নিরাপদ সে তথ্য প্রকাশ করে থাকে।
বাংলাদেশে বিমানের কর্মকর্তারা জানান, আইয়াটা অপারেশনাল সেফটি অডিট (আইওএসএ) সনদপ্রাপ্ত হওয়ায় তিন তারকা এবং ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) কালো তালিকাভুক্ত না হওয়ায় পূর্ণ তারকা পেয়েছে বিমান। জানা গেছে, প্রতিবছর বিশ্বের ৪০৫টি উড়োজাহাজ সংস’ার বয়স ও লাভজনকের হারের সঙ্গে দুর্ঘটনায় পড়া ও গুরম্নতর ঘটনার রেকর্ড বিশেস্নষণ করে নিরাপদ এয়ারলাইন্সের তালিকা তৈরি করে সংস’াটি। এড়্গেত্রে সরকারি, বিশ্ব এভিয়েশন গভর্নিং বডি ও এভিয়েশন সংশিস্নষ্ট শীর্ষ সংগঠনগুলোর অডিটসহ ১২টি পৃথক মানদ- ব্যবহার করা হয়েছে।
সংস’াটির বরাত দিয়ে বিমানের কর্মকর্তারা জানান, গত ১০ বছরে
দুর্ঘটনা এড়াতে সড়্গম হওয়ায় এবং কোনো আরোহীর মৃত্যু না হওয়ায় আরেকটি পূর্ণ তারকা পেয়েছে বিমান। তবে ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (এফএএ) অনুমোদন না থাকা ও আইকাওয়ের আটটি নিরাপত্তা প্যারামিটার সম্পন্ন না করায় দুটি তারকা পায়নি বিমান। রাশিয়া, চীন, ফ্রান্স, জাপানসহ বিশ্বের ৫৯টি দেশের বিমান সংস’া সাত তারকার মধ্যে সাতটি তারকা পেয়ে সবচেয়ে নিরাপদ এয়ারলাইন্সের তালিকায় স’ান করে নিয়েছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি বিমান সংস’া নিরাপদ তালিকায় রয়েছে চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের।
বিমানের ইতিহাসে এটি বিরাট সাফল্য বলে মনত্মব্য করে সংস’াটির মহাব্যবস’াপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ বলেন, ‘বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স যাত্রী পরিবহনের ড়্গেত্রে তাদের নিরাপত্তাকে সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে। নিরাপত্তার মান বাড়ানোর জন্য বেশকিছু পদড়্গেপ নিয়েছে বিমান। প্রসঙ্গত, ১৯৭২ সালের জানুয়ারিতে প্রতিষ্ঠিত হয় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।