বিশ্বকাপে দর্শক রোবেন-বেল সানচেজরা

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক
P10-3

চার বছর অন্তর বিশ্ব সেরা ফুটবলারদের একত্রিত করে সবচেয়ে রোমাঞ্চকর প্রদর্শনী বিশ্বকাপ। সেই লক্ষ্যে রাশিয়ায় পা রাখার প্রস্তুতি নিচ্ছেন শীর্ষ খেলোয়াড়রা। কিন’ তারকাদের জন্য দূর থেকে ওয়ার্ল্ডকাপের উত্তেজনা দেখাটা কঠিন যারা কিনা বাছাইপর্বেই অঘটনের শিকার হয়েছেন। খবর বাংলানিউজ’র।
এ তালিকায় আছেন আরিয়েন রোবেন, গ্যারেথ বেল, আলেক্সিস সানচেজদের মতো আইকনরা। বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব অতিক্রম করাটা বরাবরই চ্যালেঞ্জিং। ক্লাব ফুটবলে যতই দক্ষতা থাকুক এখানে জায়গা করে নেওয়ার কোনো নিশ্চয়তা নেই, ব্যক্তিগত নৈপুণ্য যতই ভালো থাকুক তা কোনো কাজে আসবে না।
নিজেদের দেশ বাছাইপর্বে ব্যর্থ হওয়ায় রোবেন, বেল, সানচেজ সহ আরও অনেকেই আগামী বছরের রাশিয়া বিশ্বকাপে দর্শক ভূমিকায় থাকবেন। তারকাদের কাতারে থেকেও ওয়ার্ল্ডকাপে খেলতে না পারার দুঃস্মৃতি সারা জীবন তাড়িয়ে বেড়াবে। গত বছর ইউরোতে ওয়েলসকে সেমিফাইনালে নিয়ে যাওয়া রিয়াল মাদ্রিদ সুপারস্টার গ্যারেথ বেল এবার দলকে সাহায্য করতে পারেননি। ইনজুরির কারণে বাছাইপর্বের শেষ ম্যাচে রিপাবলিক অব আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে গ্যালারিতে বসে ১-০ গোলের পরাজয়ের সাক্ষী হন তিনি। প্লে-অফ পজিশন থেকেও ছিটকে যায় ওয়েলস। বাছাইপর্ব থেকে বিদায় নিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন আরিয়েন রোবেন। ২০১০ আসরের ফাইনালিস্ট ও গতবারের সেমিফাইনালিস্ট নেদারল্যান্ডস মূল পর্বের আগেই বাদ পড়লো। বিদায়ী ম্যাচে সুইডেনের বিপক্ষে (২-০) দু’টি গোলই করেন রোবেন। প্লে-অফের আশা বাঁচিয়ে রাখতে কমপক্ষে ৭-১ গোলে জিততে হতো।
অসম্ভব সমীকরণ সামনে রেখে আগেই বিশ্বকাপ স্বপ্ন শেষ হয়ে গেছে বলে জানিয়েছিলেন বায়ার্ন মিউনিখ তারকা। মূলত, লুক্সেমবার্গের বিপক্ষে সুইডিশদের গোল উৎসবই (৮-০) পয়েন্ট টেবিলে পার্থক্য গড়ে দেয়। তাদের সমান ১৯ পয়েন্ট হলেও গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থাকায় তৃতীয় স’ানে থেকে হতাশা সঙ্গী করে বাছাইপর্ব মিশন শেষ করলো রোবেনের নেদারল্যান্ডস।
শেষ ম্যাচে ব্রাজিলের মাঠে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে টানা দু’বারের কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়নদের। ৩-০ গোলে হেরে পয়েন্ট টেবিলে ছয়ে নেমে যাওয়ায় প্লে-অফ খেলার সুযোগটাও শেষ চিলির। ইকুয়েডরের মাঠে (৩-১) লিওনেল মেসির হ্যাটট্রিকে সরাসরি বিশ্বকাপ নিশ্চিত করেছে আর্জেন্টিনা। পেরু-কলম্বিয়া ম্যাচটি ড্র (১-১) হওয়াতেই কপাল পুড়েছে চিলিয়ানদের। প্লে-অফের পঞ্চম পজিশনে থাকা পেরুর সমান ২৬ পয়েন্ট হলেও গোল ব্যবধানে পিছিয়ে তারা। ব্রাজিলের বিপক্ষে ১-০ ব্যবধানে হারলে বিশ্বকাপের লড়াইয়ে টিকে থাকতেন সানেচজ-আর্তুরো ভিদালরা। বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব থেকে বিদায় নেওয়া উল্লেখ্যযোগ্য অন্য তারকাদের মধ্যে আছেন চিলির আর্তুরো ভিদাল (বায়ার্ন মিউনিখ) বসনিয়ার ইডেন জেকো (রোমা), গ্যাবনের পিয়েরে এমেরিক উবামেয়াং (বুরুশিয়া ডর্টমুন্ড), স্লোভাকিয়ার মারেক হামসিক (নাপোলি), আলজেরিয়ার রিয়াদ মাহরেজ (লিচেস্টার সিটি), স্লোভেনিয়ার জ্যান ওবলাক (অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ গোলরক্ষক), যুক্তরাষ্ট্রের উঠতি উইঙ্গার ক্রিস্টিয়ান পুলিসিক (বুরুশিয়া ডর্টমুন্ড), অস্ট্রিয়ার ডেভিড আলাবা (বায়ার্ন মিউনিখ), সেনেগালের সাদিও মানে (লিভারপুল) ও তুরস্কের আরদা তুরান (বার্সেলোনা)।