বিলাইছড়ি আওয়ামী লীগ সভাপতি হত্যা মামলায় আটক ১

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙামাটি

রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যাকে গুলি করে হত্যার ঘটনার ৫ দিনের মাথায় মামলা হয়েছে।
সন’ লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির উপজেলা কমিটির সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান শুভমঙ্গল চাকমাকে প্রধান এবং দলটির আরো ২০ জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৭/৮ জনকে আসামি করে মামলাটি করেছেন উপজেলা যুবলীগ অর্থ সম্পাদক মনির হোসেন।
শুক্রবার রাতে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে বলে জানান তিনি।
বিলাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. পারভেজ আলী মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে নয়, দলের পক্ষ থেকে মামলাটি করা হয়েছে। নিহত সভাপতির দলীয় একজন সহকর্মী মামলাটি করেছেন।
এদিকে সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা হত্যা মামলার সন্দেহভাজন আসামি স্নেহাশীষ চাকমা আশিষ নামের একজনকে আটক করেছে যৌথবাহিনী। গতকাল শনিবার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাঙামাটি শহরের বনরূপা এলাকা থেকে যৌথবাহিনী তাকে আটক করে। স্নেহাশীষ চাকমা ছাত্রজীবনে সন’ লারমার নেতৃত্বাধীন ছাত্র সংগঠন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন বলে জানিয়েছে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী।
কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি জানান, যৌথবাহিনীর অভিযানে স্নেহাশীষ চাকমা নামে একজনকে আটক করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, গত ১৯ মার্চ সকালে নির্বাচনের কাজ শেষে উপজেলার ফারুয়ার গ্রামের বাড়ি থেকে সপরিবারে বিলাইছড়ি ফেরার পথে আলিখিয়ং এলাকায় একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যাকে বহনকারী ইঞ্জিনচালিত বোটটি থামিয়ে তাকে বুকে ও কপালে গুলি করে হত্যা করে। এ হত্যাকাণ্ডের জন্য সন’ লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতিকে দায়ী করে শহরে বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ করেছে এবং হত্যাকারীদের গ্রেফতারের আল্টিমেটাম দিয়েছে রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগ।