চমেক হাসপাতাল

বিনামূল্যে ফ্যাক্টর ইনজেকশন পাবেন হিমোফেলিয়া রোগীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

হিমোফেলিয়া একটি বংশগত রক্তরোগ। চিকিৎসা দিয়ে এ রোগ সম্পূর্ণ নিরাময় করা না গেলেও এটি নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। এজন্য ‘এন্টি হিমোফেলিক ফ্যাক্টর’ নামে একটি ইনজেকশন নিতে হয় এসব রোগীদের। তবে এই ইনজেকশনের দাম অনেক। তাই অনেক গরীব-অসহায় রোগীর পক্ষে ইনজেকশনের নেয়া সম্ভব হয় না। তবে হিমোফেলিয়া আক্রান্ত কোনো রোগী চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে

চিকিৎসা নিতে আসলে এখন বিনামূল্যে ফ্যাক্টর ইনজেকশন পাবেন।
হাসপাতালের পক্ষ থেকে রোববার এ ঘোষণা দেওয়া হয়।
এর আগে ওয়ার্ল্ড ফেডারেশন অব হিমোফেলিয়া হিউম্যানিটেরিয়ান এইডের পক্ষ থেকে হাসপাতালে প্রায় এক কোটি টাকা মূল্যের ১৩৭টি ফ্যাক্টর ইনজেকশন প্রদান করা হয়। এ উপলক্ষে হাসপাতালের পরিচালক কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জালাল উদ্দিন ও হিমোফেলিয়া সোসাইটি অব বাংলাদেশ চট্টগ্রাম অঞ্চলের সভাপতি সাইফুল ইসলাম উপ-পরিচালক ডা. আখতারুল ইসলাম, হৃদরোগ বিভাগের প্রধান ডা. প্রবীর কুমার দাশ, হেমাটোলজি বিভাগের প্রধান ডা. মো. গোলাম রব্বানী, হিমোফেলিয়া সোসাইটি অব বাংলাদেশ চট্টগ্রাম অঞ্চলের সাধারণ সম্পাদক এইচ এম তানভীর ও কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ মাহিন উদ্দীন উপসি’ত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জালাল উদ্দিন বলেন, এ রোগে আক্রান্ত রোগীদের নিয়মিত চিকিৎসকের কাছে গিয়ে চিকিৎসা নিতে হয়। ফলে তাদের প্রচুর অর্থের প্রয়োজন হয়, যা সবার পক্ষে বহন করা কষ্টসাধ্য। ওয়ার্ল্ড ফেডারেশন অব হিমোফেলিয়ার পক্ষে থেকে হাসপাতালে এ রোগের অনেক ইনজেকশন প্রদান করা হয়েছে। ফলে এখন থেকে এ রোগে আক্রান্তদের বিনামূল্যে এসব ইনজেকশন প্রদান করা হবে।
এসময় হেমাটোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. মো. গোলাম রব্বানী বলেন, দেশে হিমোফেলিয়া রোগীর সংখ্যা প্রায় ১০ হাজারের মতো। তাদের মধ্যে ৮০ শতাংশ রোগী হিমোফেলিয়া-এ এবং বাকি ২০ শতাংশ রোগী হিমোফেলিয়া-বি রোগে আক্রান্ত।

উল্লেখ্য, হিমোফেলিয়া রোগীদের নিবিড় পর্যবেক্ষণের সুবিধার জন্য হাসপাতালের হেমাটোলজি ওয়ার্ডে ডব্লিউ বি ডি আর রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম চালু রয়েছে। এছাড়া বর্তমানে দেশে চারটি হাসপাতালে হিমোফেলিয়া ট্রিটমেন্ট সেন্টার চালু রয়েছে, তারমধ্যে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল অন্যতম।