বিচারক পেল দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রায় দেড় বছরের বেশি সময় ধরে বিচারক ছিল না চট্টগ্রামের একমাত্র বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে। সম্প্রতি স’াপিত সন্ত্রাস বিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক আব্দুল হালিমকে দিয়েই চলছিল গুরুত্বপূর্ণ এই ট্রাইব্যুনালের বিচারকাজ। চাঞ্চল্যকর খুনের মামলা থেকে শুরু করে জঙ্গি সংশ্লিষ্ট এবং বিস্ফোরক আইনে দায়ের করা মামলাগুলোর ভবিষ্যৎ ছিল প্রায় অনিশ্চিত। দুই আদালতে একইসাথে বিচারকাজ পরিচালনা করতে গিয়ে হিমশিম খেতেও হয়েছিল সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবদুল হালিমকে।
অবশেষে নতুন বিচারক নিয়োগ পেয়েছে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে। নরসিংদীর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক একেএম মোজাম্মেল হক চৌধুরীকে পদোন্নতি দিয়ে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ এ ট্রাইব্যুনালে। গত ৩ সেপ্টেম্বর আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগ কর্তৃক সরকারি প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে একেএম মোজাম্মেল হক চৌধুরীকে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে নিয়োগ দেওয়া হয়। ফলে দীর্ঘদিনের বিচারক সংকট থেকে মুক্তি পেল দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল।
আদালতসূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মোহিতুল হক এনাম চৌধুরীকে সিলেটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক হিসেবে বদলি করা হয়। এরপর থেকেই গুরুত্বপূর্ণ এ ট্রাইব্যুনাল বিচারকশূন্য অবস’ায় ছিল। আদালতসূত্রে আরও জানা গেছে, দীর্ঘদিন বিচারকশূন্য থাকার পর গত ফেব্রুয়ারি মাসে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে হোসনে আরা বেগম নামে একজনকে বিচারক হিসেবে নিয়োগ দেয় আইন মন্ত্রণালয়। কিন’ কাজে যোগ না দিয়ে তিনি অন্য জায়গায় বদলি হয়ে চলে যান। এক পর্যায়ে বাধ্য হয়েই আইন মন্ত্রণালয় সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক আব্দুল হালিমকে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত বিচারকের দায়িত্ব দেয়। গত ১০ জুন থেকেই দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে দায়িত্ব পালন করে আসছেন তিনি।
দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের পেশকার আবু সাঈদ সুপ্রভাতকে বলেন, দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বর্তমানে প্রায় ১০০টি মামলা বিচারাধীন রয়েছে। যেখানে প্রায় সব-কটি মামলাই চাঞ্চল্যকর। বর্তমানে এ ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন রয়েছে বিএনপির নেতা জামাল উদ্দিন চৌধুরী হত্যা মামলাসহ চাঞ্চল্যকর ৩০টি খুনের মামলা। এ ছাড়া নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন হিযবুত তাহরীর ও আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্যদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত ১৫টি মামলাও রয়েছে এ ট্রাইব্যুনালে। তিনি আরও বলেন, অবশেষে গুরুত্বপূর্ণ এ ট্রাইব্যুনালে বিচারক নিয়োগ হয়েছে। আইন মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনের কপি হাতে পেয়েছি। চলতি মাসেই নতুন বিচারক একেএম মোজাম্মেল হক দায়িত্ব গ্রহণ করবেন।