নগরীতে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা

বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম টেস্ট কাল শুরম্ন

নিজস্ব ক্রীড়া প্রতিবেদক

সফররত ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও বাংলাদেশের মধ্যকার সিরিজের প্রথম টেস্ট আগামীকাল থেকে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী বিভাগীয় স্টেডিয়ামে শুরম্ন হবে। এ টেস্ট ম্যাচ উপলড়্গে নগরীতে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস’া নেয়া হয়েছে। গত ১৫ নভেম্বর চট্টগ্রাম পৌঁছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল অনুশীলন করে স’ানীয় আবহাওয়ার সাথে পরিচিত হতে পেরেছে। এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে বিসিবি একাদশের বিরম্নদ্ধে ১৮ ও ১৯ নভেম্বর দুই দিনের প্রস’তি ম্যাচে দলের সদস্যরা ভালোই অনুশীলন করে নেন। ড্র হওয়া এ ম্যাচে বাংলাদেশ দলের সৌম্য সরকার ও নবাগত সাদমানের ব্যাটে রান আসে। গতকাল বাংলাদেশ দলের মাত্র ৪ জন অনুশীলন করলেও উইন্ডিজ দলের সবাই পুরোদমে অনুশীলনে ব্যসত্ম ছিল। আজ টেস্ট ভেন্যুতে সকাল থেকে দুই দলেই নিজেদের প্রস’তিটা ভালো করেই সারবেন। এর আগে জিম্বাবুয়ের বিরম্নদ্ধে ঢাকা টেস্টে বেশ কয়েকটি রেকর্ড গড়েছেন মুশফিকুর রহিম, তাইজুল ইসলাম, মুমিনুল হক, মেহেদি হাসান মিরাজরা। এ টেস্টে বিশাল ব্যবধানে জয় পায় স্বাগতিকরা। এখন চট্টগ্রামে উইন্ডিজের বিরম্নদ্ধে টেস্টের আগে বেশ কিছু রেকর্ড ও মাইলফলকের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন টাইগাররা। লাকি ভেন্যু হিসেবে বিবেচিত জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সেসব রেকর্ড স্পর্শ করতে পারবেন কি-না ক্রিকেটাররা তা সময়ই বলে দেবে। টেস্ট ক্রিকেটে মুশফিকুর রহিমের বর্তমান রান ৩৯৬৯। দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে টেস্ট ক্রিকেটে চার হাজার রানের ক্লাবে প্রবেশ করতে তার আর মাত্র ৩১ রান করতে হবে। এছাড়াও চট্টগ্রাম টেস্টের দুই ইনিংস মিলিয়ে ৮১ রান করতে পারলেই অভিজাত এ ফরম্যাটে বাংলাদেশের পড়্গে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী হয়ে যাবেন মুশফিক। শীর্ষে থাকা তামিমের নামের পাশে রয়েছে ৪০৪৯ রান। ইনজুরির কারণে তিনি নিজ মাঠে এবারও খেলবেন না। টেস্ট ক্রিকেটে মুশফিকের বর্তমান বাউন্ডারির সংখ্যা ৪৭৬টি। এ টেস্টে ২৪টি চার মারতে পারলেই বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্ট ক্রিকেটে ৫০০ চারের মালিক হবেন তিনি। দেশের পড়্গে সর্বোচ্চ ৪৯৪টি চার হাঁকান তামিম। এছাড়াও আর মাত্র ৫টি ছক্কা হলেই দেশের ইতিহাসের সর্বোচ্চ ছক্কার মালিকও হবেন তিনি। মুশফিকের রয়েছে ৩০টি ছক্কা। তার উপরে মোহাম্মদ রফিক ৩৪ ও তামিম ইকবাল অবস’ান করছেন ৩৩টি ছক্কা নিয়ে। হাতের ইনজুরি কাটিয়ে দলের সাথে যোগ দেয়া সাকিবের সামনে রয়েছে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে টেস্ট ক্রিকেটে ২০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করার। ৫৩ ম্যাচে ১৮ বার ৫ উইকেট নিয়ে সাকিবের বর্তমান উইকেট সংখ্যা ১৯৬। চট্টগ্রামের মাঠে এরই মধ্যে ১৪ ম্যাচে ৫০ উইকেট নেয়া সাকিবের জন্য এক ম্যাচে ৪ উইকেট নেয়া খুব বেশি কঠিন হবে না। আর মুমিনুল হকের ক্যারিয়ারের মোট ৭টি সেঞ্চুরি ৫টিই তিনি হাঁকিয়েছেন জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে। ৩১ ম্যাচের ক্যারিয়ারে যেখানে সবমিলিয়ে তার গড় ৪৩.৫৫, সেখানে এ মাঠে খেলা সাত ম্যাচে তার গড় প্রায় দ্বিগুণ, ৮৬.৯০। এ মাঠে এখনো পর্যনত্ম ৮৬৯ রান করেছেন তিনি। ১৩১ রান করতে পারলেই দ্বিতীয় বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে চট্টগ্রামে ১০০০ রানের মাইলফলক স্পর্শ করবেন মুমিনুল। জিম্বাবুয়ের বিরম্নদ্ধে সিরিজে পাঁচ উইকেটের হ্যাটট্রিকসহ বেশ কিছু কীর্তি গড়েছেন বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম। চট্টগ্রামেও তার জন্য অপেড়্গা করছে একটি মাইলফলক। এ টেস্টে ১৩ উইকেট শিকার করতে পারলে তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে ১০০ উইকেটের ক্লাবের সদস্য হবেন তাইজুল। তার বর্তমান উইকেট সংখ্যা ৮৭। তার সামনে রয়েছেন মোহাম্মদ রফিক (১০০) ও সাকিব আল হাসান (১৯৬)।