ফ্রান্স ‘ফুটবল বিরোধী’ দল : কর্তোয়া

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক
P10-2

সোনালি প্রজন্মে ভর করে স্বপ্নের দুয়ারে দাঁড়িয়ে ছিল বেলজিয়াম। ১৯৮৬ সালের পর ফের সেমিফাইনালে উঠে এসেছিল দলটি। ইডেন হ্যাজার্ড, রোমেলু লুকাকু, কেভিন ডি ব্রুইনে ভর করে ট্রফি জয়ের স্বপ্ন দেখছিল দেশটি। কিন’ গত মঙ্গলবার প্রথম সেমি ফাইনালে ফ্রান্সের বিপক্ষে ১-০ গোলে হেরে সেই স্বপ্ন মিলিয়ে গেছে। তবে বেলজিয়াম গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়া ফ্রান্সের এদিনের কৌশল নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। ফ্রান্সকে ‘ফুটবল বিরোধী’ দল হিসেবেই অভিযুক্ত করেছেন চেলসির দীর্ঘদেহী এই গোলরক্ষক। খবর জাগোনিউজ’র।
সেন্ট পিটার্সবার্গ স্টেডিয়ামে গত মঙ্গলবারের লড়াই প্রথমার্ধ ছিল গোলশূন্য। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই স্যামুয়েল উমতিতির হেড থেকে করা গোলে এগিয়ে যায় ফ্রান্স। কিন’ বেলজিয়াম দারুণ প্রচেষ্টার পরও গোল পরিশোধ করতে পারেনি। পুরো ম্যাচে ৬৪ শতাংশ বল দখলে রেখেও পরাজিত থাকতে হয়েছে। বেলজিয়াম গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়া তাই বলছেন, ‘এটি (ফ্রান্স) একটি ফুটবল বিরোধী দল। তাদের স্ট্রাইকাররা গোল থেকে ৩০ মিটার দূরত্বে খেলেছে।’
কর্তোয়া বলেন এমন খেলার সাক্ষী তিনি প্রথম হলেন, ‘ফ্রান্স ফুটবল বিরোধী খেলা খেলেছে। আমার কখনো এমন অভিজ্ঞতা ছিলনা স্ট্রাইকাররা গোল থেকে এতো দূরে খেলে। নিজেদের মতো খেলাটা তাদের অধিকার…কিন’ এটা দেখতে কখনোই ভালো দেখায় না।’ শুধু ফ্রান্সের কৌশল নয়, রেফারিকেও কাঠগড়ায় তুলেছেন বেলজিয়াম গোলরক্ষক, ‘শুধু ফ্রান্সের ট্যাকটিক্টস নয়, রেফারিও ভালো বাঁশি বাজাননি।’
গোল পোস্টের নিচে অবশ্য ব্যস্ত সময় কাটাতে হয়েছে কর্তোয়াকে। মোট ১৯টি শটের মুখোমুখি হতে হয়েছে তাকে। যার পাঁচটি ছিল অন টার্গেটে। এই তথ্য কর্তোয়ার মন্তব্যকে ভুল প্রমাণ করে। কিন’ বেলজিয়ান গোলরক্ষক সাফ বলে দিচ্ছেন, ‘ফ্রান্স হেড থেকে একটি গোল করেছে। এরপর ডিফেন্স ছাড়া কিছুই করেনি।’