ফটিকছড়িতে প্রবাসীর জমি দখলের অভিযোগ বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিনিধি, ফটিকছড়ি

ফটিকছড়িতে বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে এক ইতালি প্রবাসীর জমি দখলের অভিযোগ ওঠেছে। উপজেলা বিএনপি নেতা নুরুল হুদা চৌধুরী ইতালি প্রবাসীর উপজেলা সদরের এ মূল্যবান সম্পত্তি দখলের পাঁয়তারা করছেন বলে অভিযোগ।
ইতালি প্রবাসী গোলাম মোস্তফা কর্তৃক প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে দায়ের করা লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।
বিষয়টি তদন্ত করে প্রবাসীর স্বার্থ সুরক্ষার স্বার্থে প্রয়োজনীয় ব্যবস’া গ্রহনের জন্য পুলিশের আইজি, র্যা ব মহাপরিচালক ও চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসককে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গত ১ ফেব্রুয়ারি প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস’ান মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব কালাচাঁদ সরকার স্বাক্ষরিত পত্রে এ নির্দেশনা জারি করা হয়।
লিখিত অভিযোগে প্রবাসী গোলাম মোস্তফা জানান, তিনি দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে ইতালিতে কর্মরত আছেন। দীর্ঘদিন দেশে না থাকার সুবাদে স’ানীয় উপজেলা বিএনপি নেতা নুরুল হুদা চৌধুরী তার ঘরের পাশে গোলাম মোস্তফাদের পৈতৃক জমির প্রায় এক শতকেরও বেশি জায়গা জবর দখল করে নেয়।
গত বছরের জুন মাসে এ নিয়ে দেশে ফিরে জবর দখলকৃত জমি ছেড়ে দেয়ার জন্য নুরুল হুদাকে একাধিকবার বললেও তিনি উক্ত জমি ছেড়ে দেননি। এ নিয়ে বেশ কয়েক দফা স’ানীয়ভাবে সালিশী বৈঠকও হয়। কিন’ কোনো ধরনের সিদ্ধান্ত মানেননি নুরুল হুদা। এরপর গত বছরের ২৯ জুন নুরুল হুদার কিরুদ্ধে ফটিকছড়ি থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন গোলাম মোস্তফা।
থানায় ডায়েরি করার পর ক্ষিপ্ত হয়ে নুরুল হুদা তার লোকজন নিয়ে গোলাম মোস্তফার ওপর অতর্কিত হামলা করে তাকে মারাত্মক আহত করেছিলেন। এ নিয়ে থানায় একটি নিয়মিত মামলা দায়ের হলে বিএনপির এ নেতা তখন গ্রেফতার হন।
বর্তমানে উক্ত মামলা চলমান রয়েছে। এদিকে জেল থেকে জামিনে এসে পূনরায় গোলাম মোস্তফাদের পৈতৃক উক্ত জমি জবর দখলে রেখেছে ওই বিএনপি নেতা।
গোলাম মোস্তফা জানান, বর্তমানে নুরুল হুদা চৌধুরী তার লোকজন নিয়ে গোলাম মোস্তফা ও তাদের পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। তাদেরকে প্রাণে মেরে ফেলবে বলেও হুমকি প্রদান করছে।
বর্তমানে ভূমিদস্যু নুরুল হুদা গংদের অব্যাহত হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন প্রবাসী গোলাম মোস্তফার পরিবার। সে হামলা, মিথ্যা মামলায় জড়ানোসহ যে কোনো ধরনের ক্ষতিসাধন করতে পারে মর্মে আশংকা প্রকাশ করেছেন উক্ত প্রবাসী।
তিনি বিএনপির এ প্রভাবশালী নেতার এ ধরনের অত্যাচার থেকে রেহাই পেতে প্রশাসনের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এ ব্যাপারে ফটিকছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মফিজ উদ্দিন বলেন, বিষয়টি নিয়ে মামলা চলমান আছে। আমরা নুরুল হুদাকে একবার গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছিলাম। আবারো এ ধরনের কোনো বিষয় তদন্তে প্রমাণিত হলে ব্যবস’া নেয়া হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন