প্রবাসীর রহস্যজনক মৃত্যু ফটিকছড়িতে

নিজস্ব প্রতিনিধি, ফটিকছড়ি

ফটিকছড়ি পৌরসদরে ভাড়াবাসায় সৌদি আরব প্রবাসী মুহাম্মদ ইদ্রিস (৪৫) নামে এক ব্যক্তির রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।
গতকাল বুধবার থানায় দায়েরকৃত ভাই ইউনুছের অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার ভূজপুর থানাধীন নারায়নহাট ইউনিয়নের পূর্ব চাঁনপুর গ্রামের মুহাম্মদ ইছাকের পুত্র মুহাম্মদ ইদ্রিস (৪৫) উপজেলার ফটিকছড়ি পৌরসভার ডাক বাংলোর পূর্ব পাশে এজাহার বিল্ডিংয়ে ভাড়াবাসায় স্ত্রী ও ২ মেয়ে নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। সম্প্রতি ইদ্রিস সৌদি আরব থেকে দেশে আসেন অসুস’ হয়ে। আসার পর বিভিন্ন ডাক্তার দেখানো হয়। চিকিৎসার ফলে কিছুটা সুস’ হওয়ায় আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি তিনি পুনরায় সৌদি আরব যাবার কথা ছিল। তার স্ত্রী উপজেলার একটি বিদ্যালয়ের লাইব্রেরিয়ান হিসেবে চাকরিরত।
গত ১৩ ফেব্রুয়ারি রাতে সিলিং ফ্যানের সাথে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করে বলে ভাই ইউনুস বাদি হয়ে থানায় অভিযোগ করেন। এতে ইদ্রিস প্যারালাইসিস রোগসহ নানা রোগে আক্রান্ত বলে উল্লেখ করেন। তবে প্যারালাইসিস রোগী কিভাবে সিলিং ফ্যানের সাথে ফাঁস লাগাল তা রহস্য জনক!
এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই এইচ এম দেলোয়ার হোসেন বলেন, কারো কোন অভিযোগ না থাকায় উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতিক্রমে ইদ্রিসের লাশ তার স্বজনদের দেয়া হয়েছে।
প্যারালাইসিস রোগী কিভাবে আত্নহত্যা করতে পারে এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্যারালাইসিস হবার পর চিকিৎসা নিয়ে কিছুটা সুস’ হয়েছেন। ২২ ফেব্রুয়ারি সৌদি আরব চলে যাবার দিনক্ষণ ছিল। জানা যায়, তার ৮ম শ্রেণী পড়-য়া মেয়ে রাতে লেখাপড়া না করে মোবাইলে গেম খেলার কারণে মেয়েকে মারধর করে। তখন তার স্ত্রী বাধা দেয়। ফলে অভিমান করেও আত্নহত্যা করতে পারে। ইদ্রিসের লাশ উপজেলা স্বাস’্য কমপ্লেক্স থেকে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে অনুমতিক্রমে লাশ স্বজনদেরকে দেয়া হয়েছে।
ময়নাতদন্ত ব্যতীত তার লাশ দাফন করা হয়েছে।