পৌর কাউন্সিলরসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিনিধি, চকরিয়া

চকরিয়া পৌরশহরের বায়তুশ শরফ সড়কে কাজী মার্কেটের পেছনে রিদুয়ান জন্নাত নামের এক বিধবার স্বামীর কোটি টাকা দামের জমি জবরদখল চেষ্টার ঘটনায় অভিযুক্ত পৌর কাউন্সিলর মুজিবুল হক মুজিবসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ৯ আগস্ট ওই বিধবার ছেলে নাজমুল কাদের বাদি হয়ে কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ওই দায়ের করেন।
মামলায় অভিযুক্ত অপর তিন বিবাদি হলেন চকরিয়া পৌরসভার বিনামারা গ্রামের বাসিন্দা মৃত আহমদ কবিরের ছেলে নাছির উদ্দিন প্রকাশ নোভা নাছির, পৌরসভার দক্ষিণ লক্ষ্যারচর এলাকার বাসিন্দা আলী মিস্ত্রীর ছেলে গিয়াস উদ্দিন ও পৌরসভার জনতা মার্কেট এলাকার মৃত তমিম গোলালের ছেলে ফৌজুল আজীম।
বিচারক বাদির অভিযোগটি আমলে নিয়ে বিরোধপুর্ণ ওই জায়গায় অবৈধ স’াপনা নির্মাণকাজ বন্ধের মাধ্যমে সেখানে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে চকরিয়া থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন। একই সাথে আদালত ওই জমির ব্যাপারে সরেজমিন তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য চকরিয়া উপজেলা সহকারি কমিশনারকে (ভূমি) নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলার বাদি নাজমুল কাদেরের মাতা ভুক্তভোগী রিদুয়ান জন্নাত (৬৭) জানান, ১৯৬২ সালের ৫ সেপ্টেম্বর তাঁর মরহুম স্বামী নুরুল ইসলাম প্রকাশ নজরুল ইসলাম চিরিঙ্গা মৌজার অধীন আগের মালিক ইউসুফ আলী গং থেকে তফসিলভুক্ত বিএস খতিয়ানের ২০ শতক জমি ক্রয় করেন। যার রেজিস্ট্রি কবলা নম্বর ১৪৫৩।
জমিটি ক্রয়ের পর স্বামী মারা গেলে রিদুয়ান জন্নাত ও তার ছেলেমেয়েরা ওয়ারিশিমূলে জমির মালিক হন। এরপর থেকে ক্রয়কৃত ওই ২০ শতক জমি তাদের ভোগদখলে রয়েছে।
জমির মালিক রিদুয়ান জন্নাত অভিযোগ করেন, তিনি অসহায় মহিলা হওয়ার সুবাদে দীর্ঘদিন ধরে প্রভাব বিস্তার করে চিরিঙ্গা এলাকার একটি প্রভাবশালীমহল তাঁর স্বামীর ক্রয়কৃত ওই জমি জবরদখলের জন্য নানাভাবে অপচেষ্টা চালিয়ে আসছে। অপর একটি পক্ষের কাছ থেকে জমি কেনার অজুহাতে অভিযুক্ত নাছির উদ্দিন (নোভা নাছির), গিয়াস উদ্দিন ও পৌর কাউন্সিলর মুজিবুল হক মুজিবসহ একটি চক্র জমি দখলচেষ্টার সাথে জড়িত।
সর্বশেষ ৫ আগস্ট সকালে অভিযুক্ত প্রভাবশালীচক্রের সদস্যরা উপসি’ত থেকে লাঠিয়াল দুর্বৃত্তদের ব্যবহার করে তাঁর স্বামীর ক্রয়কৃত জমিতে জোরপূর্বক অবৈধ স’াপনা নির্মাণের অপচেষ্টা চালায়। এ অবস’ায় ভুক্তভোগী নারী রিদুয়ান জন্নাত ও তাঁর পরিবার ক্রয়কৃত তাদের ওয়ারিশি জমি দখলবাজদের কবল থেকে উদ্ধারে সর্বশেষ কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের দ্বারস’ হনে। পাশাপাশি মামলার বাদি নাজমুল কাদের ও তার বিধবা মাতা রিদুয়ান জন্নাত এব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।