আইনশৃঙ্খলা ও আঞ্চলিক টাস্কফোর্স সভায় বিভাগীয় কমিশনার

পূজায় সর্বোচ্চ নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে

বিজ্ঞপ্তি

চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান বলেছেন, সনাতন সম্প্রদায়ের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা শুরু হয়েছে। এটি একটি সর্বজনীন উৎসব। পূজা শুরু থেকে বিসর্জন পর্যন্ত যাতে কোন ধরনের অপরাধ কর্মকাণ্ড না ঘটে সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকলকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকেও পূজায় সর্বোচ্চ নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। বিজয়া দশমীর দিন (১৯ অক্টোবর) শুক্রবার জুমার নামাজ, সেদিন বেলা ১২টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত মণ্ডপ ও আশপাশের এলাকায় বাদ্য-বাজনা থেকে বিরত থাকতে পূজা কমিটির কর্মকর্তাদের আন্তরিক হতে হবে। যেখানে অপরাধ সেখানেই মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ব্যবস’া নেয়া হবে।
গতকাল সোমবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে পৃথকভাবে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম আঞ্চলিক টাস্কফোর্স সভা, বিভাগীয় আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা, জেলা প্রশাসকগণের সাথে সমন্বয় সভা ও বিভাগীয় রাজস্ব সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। বিভাগীয় কমিশনার অফিস সভাগুলোর আয়োজন করে।
আঞ্চলিক টাস্কফোর্স সভায় তিনি বলেন, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সড়ক, নৌপথ ও সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে মাদকের সাথে অস্ত্রের চালান আসতে পারে। নির্বাচনের আগে ও পরে দেশে যাতে কোন ধরনের অসি’তিশীল পরিসি’তির সৃষ্টি না হয়, সেজন্য চলতি মাস থেকে আগামী জানুয়ারি মাস পর্যন্ত আইন-শৃঙ্খলা বাহনীকে বিশেষ নজর রাখতে হবে।
পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক বলেন, বিভাগের প্রত্যেক জেলায় অত্যন্ত সুন্দর পরিবেশে দুর্গাপূজা সম্পন্ন করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস’া নেয়া হয়েছে। চিহ্নিত অপরাধীদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান বলেন, পূজাকে ঘিরে এখানে কোন ধরনের আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটার সম্ভাবনা নেই। তবুও মাদক, অস্ত্র উদ্ধার ও অপরাধীদের গ্রেফতারে পুলিশের বিশেষ নজরদারি রয়েছে। দুর্গাপূজা শেষে নগরীর একটি দুর্গাপূজামণ্ডপকে সিএমপি’র পক্ষ থেকে পুরস্কার দেয়ার ঘোষণা দেন তিনি।
চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পৃথক সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক, সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. নুরুল আলম নিজামী, বিজিবির রিজিয়ন কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আদিল চৌধুরী, ডিজিএফআই’র অধিনায়ক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল বশির আহমদ, কোস্টগার্ডের অধিনায়ক এস.এম মঈন উদ্দিন, আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর উপ-মহাপরিচালক মো. সামছুল আলম ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন প্রমুখ।