পুলিশের বাধায় বোয়ালখালীতে সিপিবির সম্মেলন পণ্ড

সুপ্রভাত ডেস্ক

পুলিশের বাধায় সিপিবির বোয়ালখালী উপজেলা সম্মেলন পণ্ড হওয়ার পর ভবিষ্যতে একই স’ানে সম্মেলন আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছেন দলটির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স।
তিনি বলেছেন, ‘যে স’ানে সম্মেলন করতে পুলিশ আমাদের বাধা দিয়েছে, সেই একই স’ানেই পরবর্তীতে আমরা অবশ্যই সম্মেলন করব।’
বৃহস্পতিবার বিকেলে বোয়ালখালী উপজেলা সদরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) উপজেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।
সেখানে সম্মেলন করতে না পেরে তারা একটি কমিউনিটি সেন্টারে সম্মেলন অনুষ্ঠানের চেষ্টা করলে সেখানেও পুলিশ বাধা দেয় বলে দলটির অভিযোগ।
সন্ধ্যায় বন্দরনগরীর হাজারী গলিতে সিপিবি জেলা কমিটির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এর প্রতিবাদ জানিয়ে চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক অশোক সাহা বলেন, সারাদেশে উপজেলা শাখার সম্মেলন কার্যক্রমের অংশ হিসেবে তারা বোয়ালখালী উপজেলায় দুই দিনব্যাপী সম্মেলনের আয়োজন করেন।
‘এজন্য স’ানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছ থেকে আমরা অনুমতি নিই। সে অনুযায়ী শহীদ মিনারে সম্মেলনে আয়োজন করা হয়।’
অশোক সাহা বলেন, ‘আমরা পুলিশ প্রশাসনের অনুমতি চেয়েছিলাম। কিন’ বুধবার পর্যন্ত তারা অনুমতি দেয়নি। পরে আজ সকালেও চেষ্টা করি।
‘স’ানীয় প্রশাসনের অনুমতি থাকার পরও পুলিশ আমাদের সম্মেলনস’ল ঘিরে রাখে। সেখান থেকে আমাদের তিন কর্মীকে আটক করে। পরে একটি কমিউনিটি সেন্টার ভাড়া নিলে সেখানে পুলিশ গিয়ে গেইট আটকে দেয়; কর্মীদের ঢুকতে দেয়নি।’
সিপিবির সম্মেলনের লিফলেট ও আমন্ত্রণপত্রে ‘সরকার উৎখাতের কথা আছে’- এমন বক্তব পুলিশের পক্ষ থেকে এলেও তা অস্বীকার করেন আশোক।
তিনি বলেন, ‘বিরোধী দল হিসেবে আমরা সবসময় সরকারের যে গঠনমূলক সমালোচনা করে থাকি, লিফলেটে তাই ছিল।’
ঢাকা থেকে সিপিবির কেন্দ্রীয় নেতারা সম্মেলনে যোগ দিতে চট্টগ্রামে এলেও বোয়ালখালীতে সম্মেলন পণ্ড হওয়ার খবরে মাঝপথ থেকে তারা ফিরে যান।
চট্টগ্রামের হাজারী গলির সংবাদ সম্মেলনে সিপিবি সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, ‘উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অনুমোদন দেওয়ার পরও পুলিশ আমাদের শহীদ মিনারে বাধা দিয়েছে। উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সম্মেলন করতে দেয়নি। সিপিবি অফিসের সামনে পুলিশ মোতায়েন করেছে।
‘এই ধরনের আচরণ পুলিশ এবং সরকারের স্বৈরাচারী চেহারার নমুনা বলে আমরা মনে করছি। এই ধরনের আচরণ গণতন্ত্র ও মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশকে বিপন্ন অবস’ায় নিয়ে যাচ্ছে। আমরা সরকারের এই আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’
অন্যদের মধ্যে সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মৃণাল চৌধুরী, জেলা কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য অমৃত বড়ুয়া ও কানাইলাল দাশ, বোয়ালখালী উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জামাল আব্দুল নাসের ও যুগ্ম সম্পাদক সেহাব উদ্দিন সাইফু সংবাদ সম্মেলনে উপসি’ত ছিলেন।
সিপিবির অভিযোগের বিষয়ে বোয়ালখালী থানার ওসি হিমাংশ দাশের সঙ্গে যোগযোগ করা হলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, ‘তাদের লিফলেটে সরকারবিরোধী বক্তব্য ছিল। উপজেলা প্রশাসন আমাদের কাছে জানতে চাইলে আমরা নেতিবাচক মতামত দিয়েছি।
‘যেহেতু সরকারবিরোধী, তাই উপজেলা সদরে আমরা অনুষ্ঠান করতে নিষেধ করি। পরে তারা কমিউনিটি সেন্টারে করার উদ্যোগ নেয়। সেখানে আমরা কোনো বাধা দিইনি। সম্মেলন আজ হয়নি। তারা আবার পরে সম্মেলন করবে হয়ত।’