পুতুল বিয়ে

মো?ওাফিজুল হক

ছড়ার পাখি খবর দিল, রম্নপুর পুতুল বিয়ে;
এই খুশিতে দোয়েল নাচে, নাচে বনের টিয়ে!
তার পুতুলের অঙ্গজুড়ে রূপের ছড়াছড়ি,
পুতুল তো নয় রাজকন্যা; পরিস’ানের পরি!
ও পুতুলের নাগরটা যে পৃথ্বীরাজের ছেলে,
ত্রিভুবনে এমন ছেলে আর ক’জনের মেলে?
পঙ্খীরাজে আসবে নাকি পুতুল সোনার বর,
তাইতো রম্নপু সাজায় বাড়ি, সাজায় ফুলে ঘর।
শর্ষেফুলের হলদে শাড়ি পুতুলসোনার গায়ে,
বকুলফুলের নূপুরজোড়া তার দু’খানি পায়ে।
খোঁপাজুড়ে লালদোপাটি, গাঁদাফুলের হার;
বর বরণে গাজরা-মালা লাগবে চমৎকার!
বরের মাথায় হীরের মুকুট ধান-শিশিরে গড়া,
সঙ্গী তাহার কোকিল পাখি- কণ্ঠে মধুভরা।
এই বিয়েতে কাজী হবে রম্নপুর প্রিয় হুলো,
আনন্দে তাই টুনাটুনি বাজায় সানাই ঢোলও!
বর এলে সে বসতে দেবে গন্ধরাজের ডালে,
খেতে দেবে ফুলের মধু, হাসনাহেনার থালে।
পার্থ ঘোষের প্যারা দেবে, থালায় দেবে খই,
খইকে মেখে খেতে দেবে কানাই লালের দই।
এ বিয়েতে কে কে যাবি? আয়রে ছুটে তোরা,
শতশত তৈরি আছে, ছড়ার গাড়ি ঘোড়া।
বন্ধুরা, আজ আর গল্প নয়। রূপু আর আমি স্কুলে যাচ্ছি। কারণ, রূপু চায় একদিন সত্যি সত্যিই বিমান চালিয়ে আকাশে উড়বে। এটা যে ওর দাদুর স্বপ্ন। সেদিন নিশ্চয়ই ওর বিয়েটাও এভাবেই হবে। তোমরাও তো তাই-ই চাও? তাই না?
বিদ্র:- পুতুল বিয়ে ছড়াটা মোসত্মাফিজুল হক এর গল্পে ভরা মধুর ছড়া থেকে চয়িত।