পশ্চিম ডাবুয়ায় খাস জমি দখল করে পোল্ট্রি ফার্ম নির্মাণ

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাউজান

রাউজানের পশ্চিম ডাবুয়ায় মধ্য সর্তা রাম সেবক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবনের পাশে সরকারি খাস জমি দখল করে নির্মাণ করা হয়েছে পোল্টি ফার্ম। এলাকায় একসময়ের প্রভাবশালী জমিদার ভৈরব চন্দ্র পালের দান করা জমিতে ১৯০১ সালে নির্মাণ করা মধ্য সর্তা রাম সেবক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় । জমিদার ভৈরব চন্দ্র পালের প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়ের ভবনের পাশে জমিদার ভৈরব চন্দ্র পালের দিঘি, জমিদার বাড়িসহ ডাবুয়া, বানারস, বৃকবানুপর এলাকার বিপুল পরিমাণ জমি জমিদার ভৈরব চন্দ্র পালের কাছ থেকে ক্রয় করে নেয় চিকদাইর দক্ষিণ সর্তা এলাকার বাসিন্দা ওমানস’ চট্টগ্রাম সমিতির সভাপতি ইয়াসিন চৌধুরী । বিপুল পরিমাণ সম্পত্তি ক্রয় করার পর ইয়াসিন চৌধুরী জমিদার ভৈরব চন্দ্র পালের প্রতিষ্ঠিত মধ্য সর্তা রামে সেবক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে ভৈরব সওদাগারের দিঘির পুর্ব পাশে সরকারি খাস জমি দখল করে তাতে ২শ ২০ ফুট দীর্ঘ ও ৩২ ফুট প্রস’ লেয়ার মুরগির ফার্ম নির্মাণ করে । এসময় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোরশেদুল হক চৌধুরী চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ করে । জেলা প্রশাসক অভিযোগটি তদন্ত করে ব্যবস’া গ্রহণ করার নির্দেশ দেয় রাউজান উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি জোনায়েদ কবির সোহাগকে। গত ৮ অক্টোবর উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি জোনায়েদ কবির সোহাগ রাউজান উপজেলা ভুমি অফিসের সার্ভেয়ার নিয়ে সরেজমিনে গিয়ে স্কুলের জায়গা পরিমাপ করে । স্কুল ভবনের পাশে সরকারি খাস জমিতে কোন ঘর নির্মাণ না করার নির্দেশ প্রদান করেন। জোনায়েদ কবির সোহাগ বলেন পোল্ট্রি ফার্মটি বিধি মোতাবেক উচ্ছেদ করার কার্যক্রম চলছে। রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজা বলেন, সরকারি খাস জমিতে নির্মাণ করা পোল্ট্রি ফার্ম উচ্ছেদ করা হবে । স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোরশেদুল হক চৌধুরী বলেন, জমিটি দখল করে ঘর নির্মাণ করায় স্কুলের শিক্ষার্থীরা খেলাধুলা করতে পারছেনা।এছাড়া স্কুলের পাশে ও আকবর শাহ সড়কের পাশে মুরগীর খামার করায় স্কুলের শিক্ষার্থীরা ও সড়ক দিয়ে চলাচলকারী পথচারীরা খামারের বর্জ্যের দুর্গন্ধে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। এব্যাপারে ইয়াসিন চৌধুরী বলেন, পোল্ট্রি ফার্ম নির্মাণ করা জমিটি আমি ক্রয় করেছি।