পরিবর্তনের পক্ষে রায় দিতে বলছেন নোমান

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম-১০ (হালিশহর-পাহাড়তলী-খুলশী) আসনের মনছুরাবাদ এলাকায় পিডিবি কলোনিতে গতকাল শুক্রবার জুমার নামাজের পরে নেতাকর্মীর বহর নিয়ে গণসংযোগ করতে যান ধানের শীষের প্রার্থী আবদুল্লাহ আল নোমান। এসময় কলোনির একটি ভবনের তিন তলা থেকে ১২ বছরের এক কিশোরী মোবাইল ফোন হাতে নিয়ে নিচে নেমে আসে। নোমানকে সালাম দিয়ে তার সঙ্গে সেলফি তুলতে চায়। বিস্মিত হয়ে নোমান এই কিশোরীকে পরম মমতায় মাথায় হাত বুলিয়ে কাছে টেনে নেন। ৭৪ বছর বয়সী নোমানের সাথে হাসিমাখা মুখে সেলফি তুলে আনন্দে মেতে উঠে কিশোরী।
নোমান যখন কলোনির ভেতর হেঁটে হেঁটে গণসংযোগ করছিলেন তখন ভবনের দ্বিতীয় তলা ও তৃতীয় তলার বারান্দায় বেরিয়ে আসেন বাসিন্দারা। তখন অনেক নারী-পুরুষকে হাত নেড়ে সমর্থন জানাতে দেখা যায়।
এর আগে কলোনি মসজিদে জুমার নামাজের আগে ধানের শীষের এই প্রার্থীকে দেখতে আশপাশের এলাকা থেকে ছুটে আসেন বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের শতাধিক নেতাকর্মী। যাদের বেশিরভাগই ছিল তরুণ। নামাজ শেষ হতে না হতে মুসল্লীরা সবাই ঘিরে ধরেন নোমানকে। মুসল্লীদের সাথে কুলাকুলি করে দোয়া চান তিনি।
একাদশ সংসদ নির্বাচনে এই আসনে দ্বিতীয়বারের মতো ভোটযুদ্ধে নেমেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান। এই আসনে ২০০৮ সালের নির্বাচনে তিনি এই আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রার্থী ডা. আফছারুল আমীনের কাছে প্রায় ১০ হাজার ভোটে হেরে গিয়েছিলেন। আবারও আফছারুলের মুখোমুখি তিনি।
নোমানের কর্মী-সমর্থকরা বলছেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনে অল্প ভোটের ব্যবধানে হেরে যাওয়ার পরাজয় এবার ঘুচাতে চান তিনি। এবার তিনি প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ নিয়ে ভোটের মাঠে নেমেছেন।
ভোটযুদ্ধে নোমানের এবার হাতিয়ার হলো-পরিবর্তন। গণসংযোগে ভোটারদের দুয়ারে দুয়ারে গিয়ে তিনি এলাকার উন্নয়নের জন্য পরিবর্তনের পক্ষে রায় দিতে বলছেন।
পিডিবি কলোনিতে গণসংযোগকালে ভোটারদের দুয়ারে গিয়ে মাইকে তাঁকে সেই পরিবর্তনের বার্তা দিতে দেখা গেছে। গত কয়েক দিনে ঘরে ঘরে পুলিশের অভিযানের কথাও ভোটারদের কানে দিচ্ছেন এ বিএনপি নেতা। বলছেন, ‘পুলিশ ঘরে ঘরে গিয়ে মা-বোনদের অহেতুক হয়রানি করছে। যাকে পারছে তাকে ধরে নিয়ে যাচ্ছে। আপনারা শান্তিতে থাকতে চাইলে ধানের শীষে ভোট দিন।’
আফছারুলের মন্তব্যে নোমানের প্রতিক্রিয়া
গতরাতে ফোনে সুপ্রভাতকে তিনি এ বিষয়ে বলেন, ‘এটা তার হীনমন্যতা। দেশের বিভিন্ন স’ানে এক এলাকার প্রার্থী অন্য আসনে গিয়ে নির্বাচন করছেন। তিনি আমাকে ব্যক্তিগত আক্রমণ করে ছোট করার চেষ্টা করছেন। নির্বাচনে আমি তার সাথে প্রতিযোগিতা করতে নেমেছি, প্রতিহিংসা করতে নয়।’
সংসদীয় এলাকার খুলশীতে নিজের সম্পত্তি আছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রতিপক্ষ প্রার্থী হয়তো এটা জানেন না।’