পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠানে মেয়র

পতেঙ্গা সৈকতে স্থায়ী ঘাট নির্মাণ করা হবে

বিজ্ঞপ্তি

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রতিমা নিরঞ্জনের সুবিধার্থে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে পতেঙ্গা সমূদ্র সৈকতে একটি স’ায়ী ঘাট নির্মাণের ঘোষণা দিলেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। এতে পর্যটক সহ সর্বসাধারনের সমুদ্র চরে যাতায়াত এবং পূজার্থীরা স্বাচ্ছন্দে প্রতিমা নিরঞ্জন করতে পারবে। প্রায় ১শ ফুট প্রশস্ত এ ঘাটে একসাথে চারের অধিক প্রতিমা নিরঞ্জন সম্ভব হবে। আগামী বছর এ ঘাট দিয়ে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা তাদের প্রতিমা নিরঞ্জন দিতে পারবে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে নগরীর পতেঙ্গা সি-বিচে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ব্যবস’াপনায় ও চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন দূর্গাপুজা কেবল ধর্মীয় উৎসব নয়, এটা একটা সামাজিক উৎসবও। এই উৎসব সামপ্রদায়িক সমপ্রীতির মাধ্যমে বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্যকে তুলে ধরে। তৈরি হয় সামাজিক মেলবন্ধন। আগামীতেও এই মেলবন্ধনকে দলমত নির্বিশেষে অক্ষুণ্ন রাখতে হবে। তিনি বলেন মানবতাই ধর্মের শাশ্বত বাণী। ধর্ম মানুষকে ন্যায় ও কল্যাণের পথে আহবান করে। অন্যায় ও অসত্য থেকে দূরে রাখে। দেখায় আলোর পথ। তাই ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলার পাশাপাশি সকলকে মানবতার কল্যাণে এগিয়ে আসতে হবে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বাঙ্গালীর চিরকালীন ঐতিহ্য। এই ঐতিহ্যকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে দেশের সামগ্রিক অগ্রযাত্রায়।
প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে গতকাল শুক্রবার শেষ হয়েছে ৫দিন ব্যাপি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা। এই উৎসবকে ঘিরে গতকাল জনসমুদ্রে পরিণত হয় নগরীর সমুদ্র সৈকত পতেঙ্গায়। দুপুর থেকে প্রতিমাবাহী ট্রাক, পিক-আপ ও ভ্যানগাড়ীগুলো আসতে থাকে সমুদ্র সৈকতে। দুর্গতিনাশিনী দেবী ‘মা’ দুর্গাকে বিদায় জানাতে সমবেত হন নানা বয়সী ভক্তরা। দেখতে দেখতে কানায় কানায় ভরে যায় পুরো সমুদ্র সৈকত। শান্তি পূর্ণ পরিবেশে পতেঙ্গা সৈকতে প্রতিমা বির্সজন দেয়া শুরু হয় ঘড়ির কাটায় ১২টায়। প্রতিমা বিসর্জনকে সামনে রেখে সৈকত ও আশপাশের এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস’া নেয়া হয়। এ বছর চট্টগ্রাম নগরীতে ২৫৫ টি পূজা মন্ডপ ছিল।
চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অ্যাড. চন্দন তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি কাউন্সিলর ছালেহ আহমদ চৌধুরী, জয়নাল আবদীন, শৈবাল দাশ সুমন বক্তব্য রাখেন।
এ সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ দাশ অসিত। উপস’াপনায় ছিলেন পরিষদের অঞ্জন দত্ত ও অ্যাডভোকেট তপন কুমার দাশ। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পতেঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উৎপল দত্ত, চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সাবেক সভাপতি অরবিন্দ পাল অরুন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক লায়ন আশিষ ভট্টচার্য, অধ্যাপক অর্পন কান্তি ব্যানার্জী প্রমুখ।