পটিয়ায় বিএনপির ১৩ নেতাকর্মী গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিনিধি, পটিয়া

পটিয়ায় বিএনপির ১৩ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে উপজেলার জিরি, কোলাগাঁও ও হাবিলাসদ্বীপ এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। স’ানীয় বিএনপির অভিযোগ, পরিকল্পিতভাবে পুলিশ বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করছে। তবে পুলিশ জানায়, গ্রেফতার নেতাকর্মীদের বিরম্নদ্ধে থানায় বিস্ফোরক মামলা রয়েছে।
গ্রেফতারকৃতরা হলো- জিরি মালিয়ারা গ্রামের এম এ হাকিম মেম্বার (৫৫), আবদুল লতিফ (২৪), দড়্গিণ হুলাইন গ্রামের আবু বক্কর সুজন মেম্বার (৩৫), কৈয়গ্রাম এলাকার কামাল উদ্দিন মেম্বার (৫০), জিরি মলস্ন পাড়ার আবদুল মান্নান মেম্বার (৫০), কোলাগাঁও ইউনিয়নের মোহাম্মদ নগর গ্রামের হারম্নন কাকন (৪৮), সেকান্দর হোসেন নয়ন (৩৩), শাখাওয়াত হোসেন খোকন (২৫), হুলাইন গ্রামের মঈন উদ্দিন (৩৮), চরকানাই গ্রামের মো. ফারম্নক (২০), কোলাগাঁও গ্রামের মো. শাহেদ (২২), মো. মানিক (২২) এবং মো. মিজান উদ্দিন (২২)।
গতকাল শনিবার বিকালে বিএনপির প্রার্থী এনামুল হক এনাম পটিয়া থানার ওসি শেখ মো. নেয়ামত উলস্নাহর সাথে সাড়্গাত করে দলীয় নেতাকর্মীদের বিনা কারণে হয়রানি না করতে মৌখিকভাবে আবেদন জানান।
এনামুল হক এনাম সুপ্রভাতের কাছে অভিযোগ করে বলেন, যেসব এলাকায় দলীয় নেতাকর্মী নিয়ে তিনি গণসংযোগ করছেন সেখানেই পুলিশ রাতে অভিযান চালিয়ে বিনা কারণে নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করছে। বিএনপিকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে নির্বাচন থেকে দূরে রাখার অপকৌশল ছাড়া আর কিছু নয় এটা। কিন’ বিএনপির নেতাকর্মীরা এসবে ভয় পায় না।
জানতে চাইলে পটিয়া থানার ওসি শেখ মো. নেয়ামত উলস্নাহ বলেন, বিনা কারণে পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করছে না। আওয়ামী লীগ, বিএনপি যে দলের হোক যাদের বিরম্নদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে তাদেরকে গ্রেফতার করা হচ্ছে। গত ৩১ অক্টোবর চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়ার মনসা বাদামতল এলাকায় বিএনপির নেতাকর্মীরা ককটেল বিস্ফোরণ করে। এই ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছিল। গ্রেফতারকৃতরা এই মামলার আসামি।