পটিয়ায় চালক আটক সিএনজি চাপায় দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি, পটিয়া

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরাকান মহাসড়ক থেকে সিএনজি অটোরিক্সা ধরার সময় গাড়ি চাপা দিয়ে সার্জেন্ট ও কনস্টেবলকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় সিএনজি অটোরিক্সা চালক অহিদুল আলমকে (৩২) আটক করা হয়েছে। তিনি উপজেলার জঙ্গলখাইন ইউনিয়নের মৃত রাজা মিঞার পুত্র। বৃহস্পতিবার দুপুরে পটিয়া পৌর সদরের ইন্দ্রপুল এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। আহত ট্রাফিক সার্জেন্ট জহুরুল হক ও কনস্টেবল মো. মখলেছুর রহমান পটিয়া উপজেলা স্বাস’্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসা গ্রহণ করেছেন।
ট্রাফিক বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, সেতু ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে ট্রাফিক পুলিশ সম্প্রতি মহাসড়ক থেকে অটোরিক্সা আটক অভিযান শুরু করে। এই পর্যন্ত পটিয়ায় শতাধিক অটোরিক্সা আটক করা হয়। প্রতিদিনের মত বৃহস্পতিবার দুপুরে পৌর সদরের ইন্দ্রপুল এলাকায় ট্রাফিক পুলিশ অভিযান চালাতে রাস্তায় নামেন। পটিয়ামুখী অটোরিক্সা (চট্টগ্রাম থ-১১-৩৮৫৭) ইন্দ্রপুল এলাকায় পৌঁছলে ট্রাফিক সার্জেন্ট জহুরুল সিগন্যাল দেন। ওই সময় গাড়িটি সার্জেন্ট ও কনস্টেবলকে চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। এতে জহুরুল ও মখলেছ আহত হন। পটিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মো. কামাল উদ্দিন সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, অভিযান চলাকালে ট্রাফিক সার্জেন্ট ও কনস্টেবলকে হত্যা চেষ্টা করায় গাড়ি চালককে আটক করা হয়েছে। বর্তমানে সে (চালক) থানা হেফাজতে রয়েছে। এই ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস’তি চলছে। আহত সার্জেন্ট ও কনস্টেবল হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণ করেছেন বলে জানান তিনি।