নেতাকর্মীদের উৎকণ্ঠা

নিজস্ব প্রতিবেদক

এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর শারীরিক অবস’ার অবনতি হলে গতকাল পুনরায় নগরীর মেহেদিবাগের ম্যাক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মূলত নিয়মিত ডায়ালাইসিসের জন্য সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মহিউদ্দিন চৌধুরকে হাসপাতালে আনা হয়। রক্তচাপ কমে যাওয়ায় ডাক্তাররা হাসপাতালে রাখার পরামর্শ দেন। এদিকে সন্ধ্যায় মহিউদ্দিনের বড় ছেলে ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বাবার আবারো অসুস’ হয়ে পড়ার খবর জানিয়ে ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়ে সকলের কাছে দোয়াও চান। সেটা দেখে নেতা-কর্মীরা বিচলিত হয়ে হাসপাতালে ভিড় করতে শুরু করেন।
১৬ নভেম্বর অসুস’ মহিউদ্দিন চৌধুরীকে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়। সিঙ্গাপুরের অ্যাপোলো গ্লিনিগ্যালস হসপিটালে মহিউদ্দিনের এনজিওগ্রাম এবং হার্টের দুটি ব্লকে রিং বসানো হয়। ১১ দিনের চিকিৎসা শেষে সিঙ্গাপুর থেকে ২৬ নভেম্বর রাতে তাঁকে দেশে আনা হয়। এরপর তাকে আবারো স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার স্বজনরা মহিউদ্দিনকে নিয়ে চট্টগ্রামে ফেরেন ।চট্টগ্রামে আসার দুইদিনের মধ্যে আবারো ম্যাক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হলে প্রেশার কমে যাওয়ায় ডাক্তাররা হাসপাতালে রাখার পরামর্শ দেন। বিকাল নাগাদও অবস’ার উন্নতি না হলে নিবিড় পর্যক্ষেণে নেওয়া হয়। একথা নেতা-কর্মীদের মাঝে ছড়িয়ে পড়লে তারা হাসপাতালে এসে জড়ো হন। এরই মধ্যে হাসপাতালে দেখতে আসেন সাংসদ ডা. আফসারুল আমিন, সাংসদ এ বি এম ফজলে করিম, সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, সাবেক মেয়র মনজুর আলম মঞ্জু, অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন বাবুল, সাংবাদিক আবু সুফিয়ান । এছাড়া নগর ছাত্রলীগ, যুবলীগের অসংখ্য নেতাকর্মীদেরও ভিড় করতে দেখা যায়।