নির্বাচকদেরও পাশে পাচ্ছেন সৌম্য-সাব্বির

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক
P10-4

আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ধারাবাহিকভাবে ব্যর্থ হয়েছেন বাংলাদেশের দুই তরুণ সৌম্য সরকার ও সাব্বির রহমান। পুরো টুর্নামেন্ট জুড়েই খোলসবন্দী ছিলেন এ দুই ব্যাটসম্যান। টুর্নামেন্ট শেষে তাদের পক্ষেই কথা বলেছিলেন দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। তাদের আরও সুযোগ দেওয়ার পক্ষে অধিনায়ক। দেশে ফিরেও তাদের পক্ষেই ব্যাট চালিয়েছেন তিনি। এবার অধিনায়কের সঙ্গে তাল মেলালেন বাংলাদেশের দুই নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও হাবিবুল বাসার সুমনও। শুধু চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পারফরম্যান্স দিয়েই সৌম্য-সাব্বিরকে বিবেচনা করতে নারাজ এ দুই নির্বাচক। গতকাল মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সৌম্য সরকার সম্পর্কে প্রধান নির্বাচক নান্নু বলেন, ‘সৌম্য সরকার একদম ভালো খেলছে না এটা বলতে পারেন না। ব্যাক টু ব্যাক দুইটা সিরিজ হয়েছে, ত্রিদেশীয় সিরিজে ভালো খেলেছে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে হয়তো পারেনি কিন’ আয়ারল্যান্ডে ও কিন’ ভালো খেলেছে। একটা খেলোয়াড়কে এভাবে মূল্যায়ন না করে মুল্যটা দেখতে হবে। পুরা বছরের পারফরম্যান্স দেখা উচিত। কোন ম্যাচে কতটুকু করেছে, ধারাবাহিকভাবে কি করেছে। হয়তো কৌশলগতভাবে অথবা মানসিকভাবে একটু সমস্যা হচ্ছে। এ জন্য রান করতে পারছে না। আমার বিশ্বাস আগামীতে আমাদের যে ক্যাম্প আছে ওইখানে কাজ করে ও ফিরে আসবে।’ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে এবার তিন নম্বর পজিশনে দুই জন খেলোয়াড়কে খেলিয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম দুই ম্যাচে ইমরুল কায়েস, এর পরের দুই ম্যাচে খেলেন সাব্বির রহমান। তবে দুই জনের কেউই জ্বলে উঠতে পারেননি। সাব্বির রহমান দলকে হতাশাই উপহার দিয়েছেন। দারুণ শুরু করেও ইনিংস লম্বা করতে পারেননি তিনি। ফলে শুরুতে উইকেট হারিয়ে উল্টো চাপে পড়ে যায় টাইগাররা। তবে তিন নম্বরে বাংলাদেশ দলের সমস্যা বহু পুরোনো বলে জানান নান্নু। ‘শুরুতে ঐ কন্ডিশনের জন্য সাব্বির রহমানকে নিচে ব্যাটিং করিয়েছি। আমাদের এখানে যত ম্যাচ ছিল সব ম্যাচেই সাব্বির রহমান তিনে ব্যাট করেছে। কন্ডিশনের কারণে ওইখানে চেঞ্জ করেছি। পড়ে আমরা চিন্তা করলাম ওকে অর জায়গায় ফিরিয়ে আনা হোক দেখা যাক। এর আগে কিন’ ও তিন নম্বরে খেলে ভালোই খেলেছে। আর তিন নম্বরে আমাদের সমস্যা অনেক আগে থেকেই। আমরা যখন ক্রিকেট খেলতাম তখন থেকেই এই সংকট ছিল, এখনো এটা আছে। আমি আশা করি খুব অদূর ভবিষ্যতেই এ সংকটের সমাধান হবে।