পিসি রোডের উন্নয়নকাজ পরিদর্শনে মেয়র

নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ করার নির্দেশ

বিজ্ঞপ্তি

নগরীর পোর্ট কানেকটিং রোড়ে গতকাল রাতে চলমান উন্নয়ন কাজের অগ্রগতি দেখতে ঝটিকা পরিদর্শন করলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আলহাজ আ জ ম নাছির উদ্দীন। এসময় তিনি প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠানকে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সঠিকভাবে কাজ শেষ করার নির্দেশ দেন।
জাইকার অর্থায়নে ১শত কোটি টাকা ব্যয়ে পোর্ট নিমতলা পোর্ট কানেকটিং থেকে নয়া বাজার পর্যন্ত রাস্তার উন্নয়ন কাজ চলছে। পরিদর্শনকালে সিটি করপোরেশনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, নিবার্হী প্রকৌশলী আবু সাদাত মোহাম্মদ তৈয়ব, রাজনীতিক হাজী বেলাল আহমদ, মোহাম্মদ মনসুর, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রানা ব্রাদার্সের প্রতিনিধি জাকির হোসনসহ স’ানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপসি’ত ছিলেন।
মেয়র নিমতলা পোর্ট কানেকটিং রোড থেকে বড়পুল, বড়পুল থেকে নয়াবাজার পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে নির্মিতব্য ২ মিটার প্রশস্ত আরসিসি ড্রেন ও ফুটপাত নির্মাণ কাজ সরেজমিনে প্রত্যক্ষ করেন।
জাইকার এই প্রকল্পে আরো রয়েছে রাস্তার মাঝখানে সাড়ে ৩ ফুট প্রস’ বিশিষ্ট মিডিয়ান নির্মাণ ও এলইডি আলোকায়ন ব্যবস’া। ছয় লেইনের ১২০ ফুট প্রশস্ত বিশিষ্ট পোর্ট কানেকটিং রোডের মোট দৈর্ঘ্য ২ কিলোমিটার।
স’ানীয় এলাকাবাসীদের সাথে আলাপকালে সিটি মেয়র বলেন, চট্টগ্রাম বন্দরের পণ্য পরিবহনে নিমতলা পোর্ট কানেকটিং রোড এবং আগ্রাবাদ এক্সেস রোড গুরুত্বপূর্ণ। এই সড়ক দিয়েই বন্দর থেকে পণ্য বা কন্টেইনার বাহী পরিবহন ঢাকাসহ দেশের নানাপ্রান্তে যাতায়াত করে। সড়ক উন্নয়ন কাজের জন্য বন্দরের পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্টদের দুর্ভোগ এবং হয়রানি পোহাতে হচ্ছে বলে মেয়র দুঃখ প্রকাশ করেন। ছয় লেন বিশিষ্ট পোর্ট কানেকটিং রোড এবং আগ্রাবাদ এক্সেস রোড উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়িত হলে বন্দরের পণ্য পরিবহনে গতিশীলতা ফিরে আসবে।
তিনি উন্নয়ন কাজ চলাকালীন সবমহলের সহযোগিতা কামনা করেন। এই প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, নগরবাসীর সহযোগিতা ব্যতিত নগর উন্নয়ন সম্ভব নয়। কাজের গুণগত মান অক্ষুণ্ন রাখার উপর সংশ্লিষ্টদের সতর্ক দৃষ্টি রাখার নির্দেশ দিয়ে মেয়র বলেন, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে এই রোড়ের কাজ সম্পন্ন করতে হবে। এতে কোনো প্রকার আপোষ হবে না। উল্লেখ্য, জাইকার অর্থায়নে এই উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ গত জানুয়ারি থেকে শুরু হয়। সময়সীমা ধার্য করা রয়েছে আগামী ১৯ মে।